স্বামীর হাতে ধর্ষণ হতে পারে না!

রিডার:: ঢাকা

শুক্রবার, ১১ জানুয়ারী, ২০১৯ ০২:৩৭:৪৩ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
দেশের আইনে বৈবাহিক

স্বামী দ্বারাও যে ধর্ষণ সম্ভব সেটি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে সামাজিকভাবে একটি অদ্ভুত ধারণা বলে বিবেচিত হয়। আমাদের দেশের আইনে বৈবাহিক সম্পর্কের মধ্যে ‘ধর্ষণ’ বিষয়টি অপরাধ হিসেবে এখনও চিহ্নিত হয়নি।

সেই অর্থে বিষয়টি মেনে নেওয়াই যেন কঠিন ব্যাপার।

অথচ বৈবাহিক সর্ম্পকের মধ্যে ধর্ষণকে জাতিসংঘ ভয়াবহ ধরনের পারিবারিক সহিংসতা বলে মনে করে।নিজেদের অধিকার নিয়ে দিন দিন সরব হচ্ছেন  নারীরা।

সম্প্রতি বিবিসিতে, স্বামীর কাছে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে এক নারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার অভিজ্ঞতার কথা বলতে রাজি হয়েছেন।

বেশ লম্বা সময় ধরে প্রেম করে বিয়ে করেও খুব শিগগিরই কেটে গেলো সুমনার (ছদ্মনাম) মোহ।

‘যখন তার ইচ্ছে হতো তখনই আমি বিছানায় যেতে বাধ্য হতাম। ঘরে আমার মা থাকতো, ছোট একটা ভাই থাকতো। ‘না’ বললে প্রচন্ড মারধোর করতো আমার স্বামী। সে আমার অসুস্থতাও মানত না। আমার যখন ঋতুশ্রাবের দিনগুলোতেই কেবল আমি একটু হাফ ছেড়ে বাঁচতাম। ভাবতাম হয়ত কয়েকটা দিন আমি নির্যাতনের হাত থেকে বেঁচে যাবো।’

স্বামীর সাথে দেড় বছরের মাথায় বিচ্ছেদের এটিই ছিল মূল কারণ সুমনার।

কিন্তু বৈবাহিক সম্পর্কে থাকাকালীন স্বামীর হাতে ধর্ষণ- বিষয়টি বেশিরভাগ মানুষের কাছে পরিষ্কার নয়। এ নিয়ে নারীরাই কথা বলতেও চান না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক নারী বলেন,‘ যদি আমি না করি, তবুও ও (স্বামী) আমার সঙ্গে সব কিছু করতে পারবে।’

এ আচরণ কি সঠিক কিনা এমন প্রশ্নেই ঐ নারী প্রথমে বললেন,‘ না ঠিক নয়।’

আবার পরক্ষনেই বলে উঠের,‘ মানুষে বলে স্বামীতো এরকম করতেই পারে। এটা তার অধিকার ’

অধিকার বিষয়ক সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা নীনা গোস্বামী বলেন, তাদের কাছে এ বিষয়ে কোনো নারী অভিযোগ করেন না।

‘আমাদের কাছে যারা আসেন তারা সুর্নিদিষ্টভাবে এমন অভিযোগ করেন না। কিন্তু পারিবারিক সহিংসতা বা মারধোরের অভিযোগ নিয়ে কথা বলার সময় তারা ম্যারিটাল রেপের কথাও বলেন। তাদের সাথে কথা বলার পর কিন্তু ভয়াবহতাটা ধীরে ধীরে বের হয়।’

নীনা গোস্বামী বলেন, বাংলাদেশের কোনো ধর্মের আইনেই বৈবাহিক সম্পর্কের মধ্যে ধর্ষণ বিষয়টি অপরাধ হিসেবে চিহ্নিত নয়।

‘বৈবাহিক সম্পর্ক থাকা অবস্থায় ইচ্ছের বিরুদ্ধে সেক্সুয়াল ইন্টারকোর্সও যে রেপ, ম্যারিটাল রেপ বলতে যা বোঝায়- সেটার কোন সংজ্ঞাও নির্ধারণ করা নেই এবং সেখানে কোন শাস্তির ব্যবস্থা নেই। ফলে আমরা তার প্রতিকারও দিতে পারিনা।’

নীনা গোস্বামী আরো বলেন,‘ এটা নিয়ে সরকার যেমন আগ্রহ দেখায়নি তেমনি শুধু সরকারকে দোষ দিলে হবে না, এটা নিয়ে যখন পাবলিক ডিসকাশন হয়েছে সেখান থেকেও খুব বেশি সাড়া পাওয়া যায়নি।’

 

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

এখন থেকে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের কাছ থেকে ক্রেডিট কার্ড বাবদ কুড়ি শতাংশের বেশি সুদ আদায়... আরও পড়ুন

ক্রেডিট কার্ড বাবদ কুড়ি শতাংশের

সৌদি আরবের বর্তমান বাদশাহ সালমান বিন আবদুলাজিজ আল সৌদের রাজ সিংহাসনে পদাসীন হওয়ার আগে যাঁরা... আরও পড়ুন

রাজ সিংহাসনে পদাসীন

মার্কিন টাইম সাময়িকীতে বছরের সেরা প্রভাবশালীর তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন আর্টিকেল-ফিফটিন খ্যাত অভিনেতা আয়ুষ্মান খুরানা।... আরও পড়ুন

টাইম সাময়িকীতে

যোগ্য নেতৃত্ব মৃত্যুর আগেই নাকি ঠিক করে গেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রয়াত আমির আল্লামা আহমদ... আরও পড়ুন

যোগ্য নেতৃত্ব বেঁচে থাকতেই

ঢাকায় ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের ‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের পরীক্ষা নেবে বলে ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটিশ কাউন্সিল।... আরও পড়ুন

‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের

উত্তরাধিকার সূত্রে তিনি পতৌদির নবাব কন্যা।বাবা বি-টাউনের অভিনেতা সাইফ আলি খান, মা অভিনেত্রী অমৃত সিং।... আরও পড়ুন

পতৌদির নবাব কন্যা

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৫তম অধিবেশনে ইরানের ব্যাপারে কঠোরতম সমাধান চেয়েছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন... আরও পড়ুন

ইরানের ব্যাপারে কঠোরতম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হেরে গেলে যে তিনি দেশটির রাজনৈতিক ঐতিহ্য... আরও পড়ুন

শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর

মালয়েশিয়ায় শিগগিরই নয়া সরকার গঠনের দাবি করেছেন দেশটির বিরোধীদলীয় নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম। প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিনকে... আরও পড়ুন

নয়া সরকার গঠনের দাবি

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়াতে দেশটির আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের প্রচারণায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডেমোক্রেটের জো বাইডেনের কঠোর সমালোচনা... আরও পড়ুন

জো বাইডেনের কঠোর সমালোচনা

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।