রোহিঙ্গা হত্যাযজ্ঞের স্বীকারোক্তি: ‘দেখামাত্র গুলি করবে’

রিডার::নেদারল্যান্ডস

বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০১:০২:৩৮ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
স্বীকারোক্তি দেওয়ার পর

রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দল-রিডার ফাইল ছবি

মিয়ানমারের রাখাইনে ২০০৭ সালের সেনা অভিযানে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে হত্যার স্বীকারোক্তি দেওয়ার পর দুই সেনা সদস্যকে নেদারল্যান্ডেসের হেগে বিশেষ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

দ্য নিউইয়র্ক টাইমস গতকাল মঙ্গলবার বিষয়টি তাদের এক প্রতিবেদনে প্রকাশ করেছে।

মানবাধিকার সংগঠন ফরটিফাই রাইটস বলছে, ওই সেনা সদস্য রোহিঙ্গা অধ্যুষিত উত্তরাঞ্চলে বেশকিছু গ্রামবাসী হত্যার পর গণকবর দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন।

জওয়ানদের একজন বলেছেন, তিন বছর আগের আগস্ট মাসে কমান্ডারের কাছ থেকে তারা স্পষ্ট নির্দেশ পেয়েছিলেন-দেখা মাত্রই, গুলি করবে। একটি ভিডিওতে তাদের ওই স্বীকারোক্তি এসেছে।

যে দুই সেনা ওই ভিডিওতে রোহিঙ্গা গণহত্যার কথা স্বীকার করেছেন, তারা রাখাইনে মিয়ানমারের সেনাদের বিরুদ্ধে লড়ে যাওয়া বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির হেফাজতে ছিলেন।

পরে তাদের নেদারল্যান্ডসের হেগে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানকার আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) এই সেনাদেরকে সাক্ষী হিসাবে হাজির করা হতে পারে কিংবা বিচার করা হতে পারে।

তবে মিয়ানমারের ওই দুই সেনা কিভাবে আরাকান আর্মির হাতে পড়ল তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এমনকি কীভাবে তাদেরকে হেগে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং তারা কাদের দায়িত্বে আছে, এসব কিছুই জানা যায়নি।

মিয়ানমার সরকার বা দেশটির সেনাবাহিনীর কাছে এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি।

মিয়ানমারের সেনা সদস্য মাও উইন তুন ও জ নাই তুং-নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রকাশিত ছবি

হেগে আইসিসি-র মুখপাত্র ফাদি এল আব্দুল্লাহ এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন। আইসিসি এখনও ওই দুই ব্যক্তিকে হাতে পায়নি বলে জানান তিনি। ফাদি বলেন — না, এ খবর সত্যি নয়। আমরা ওই দুইজনকে এখনো আইসিসি’র হেফাজতে পাইনি।

রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে সেনা অভিযানের সময় মিয়ানমার যুদ্ধাপরাধ করেছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে গত বছর নভেম্বরে তদন্তের উদ্যোগ নিয়েছে আইসিসি।

তবে মিয়ানমারের দাবি তাদের বিরুদ্ধে আইসিসির যুদ্ধাপরাধ সংগঠনের তদন্তই ‘বেআইনি’। কারণ, মিয়ানমার আইসিসি সনদে স্বাক্ষর করেনি। তাই তারা এই ট্রাইব্যুনালের সদস্য নয়৷ কিন্তু আইসিসি বলছে, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া বাংলাদেশ সংস্থাটির সদস্য হওয়ায় এই তদন্তের এখতিয়ার তাদের রয়েছে৷

রাখাইনে সেনা অভিযান শুরুর পর প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। আইসিসি’তে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন কানাডার আইনজীবী পায়াম আখাভান।

ফাদি এল আবদুল্লাহ বলেন, ওই দুই ব্যক্তি সরকারি সুরক্ষা দেওয়ার অনুরোধ নিয়ে একটি সীমান্ত পোস্টে হাজির হয়েছিলেন। সেখানেই তারা ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা বেসামরিক নাগরিকদের গণহত্যা ও ধর্ষণের কথা স্বীকার করেন। তবে সর্বশেষ আমি এটুকুই বলতে পারি, ওই দুই ব্যক্তি বাংলাদেশে নেই।

দুইজনের বিষয়ে আরাকান আর্মির মুখপাত্র খিনে থু খা বলেন — তারা পালিয়ে এসেছিলেন এবং তাদের কখনওই যুদ্ধবন্দি হিসেবে আটকে রাখা হয়নি।

ওই দুইজন এখন কোথায় আছেন সে বিষয়ে তিনি আর কিছু বলতে রাজি হননি। তবে বলেছেন, আরাকান আর্মি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতের নিপীড়নের শিকার সবাইকে ‘ন্যায় বিচার পাইয়ে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’।

আইসিসি-র তদন্ত ছাড়াও হেগ-এ গত বছর নভেম্বরে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়া যে মামলা করেছে তাতে এই দুই সেনার সাক্ষ্য প্রভাব ফেলতে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

২০১৭ সালে সেনা অভিযানের নামে রোহিঙ্গাদের গ্রামে গ্রামে মিয়ানমার সেনাবাহিনী যে বর্বরতা চালিয়েছে তা ১৯৮৪ সালের আন্তর্জাতিক গণহত্যা কনভেনশন এর গুরুতর লঙ্ঘন বলে অভিযোগ করে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) মামলা করে পশ্চিম আফ্রিকার ছোট্ট দেশ গাম্বিয়া।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসন্ন সাধারণ নির্বাচন নিয়ে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটদের মধ্যে প্রচারনা চলছে। একে অপরকে যুক্তি... আরও পড়ুন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসন্ন সাধারণ নির্বাচন নিয়ে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়েরই এক ছাত্রী।... আরও পড়ুন

সাবেক ভিপি নুরুল হক

যুক্তরাষ্ট্র যে নিজের খেয়াল খুশি মতো অন্য দেশগুলোর উপর নিজেদের আকাঙ্খা চাপিয়ে দেওয়ার নামে ‘নিষেধাজ্ঞা’... আরও পড়ুন

‘নিষেধাজ্ঞা’ নিয়ম জারি

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে জোড়া বিস্ফোরণে জন্য প্রথম থেকে ফ্রান্সের দিকে আঙ্গুল তুলছিল যুক্তরাষ্ট্র। বলা হচ্ছিল,... আরও পড়ুন

ফ্রান্সের দিকে আঙ্গুল

নাটকের নাম ‘বাবু খাইছো?’ আর এক নাটকে ইউটিউব দেশের ট্রেন্ডিং লিস্টে সেরার জায়গা করে নিয়েছে।... আরও পড়ুন

‘বাবু খাইছো’

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন নীতিতে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুলাহ আজিজ আল সৌদ এবং তাঁর... আরও পড়ুন

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন নীতিতে সৌদি

চীনাদের গুপ্তচরবৃত্তিতে জড়িত থাকার অভিযোগে ভারতের রাজধানী দিল্লীর এক স্থানীয় সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত... আরও পড়ুন

চীনাদের গুপ্তচরবৃত্তিতে জড়িত থাকার অভিযোগে

ভারতের মুম্বাই শহরে ভিবান্ডি এলাকায় তিনতলা ভবন ধসে পড়ে অন্তত শিশুসহ দশজন নিহত হয়েছেন। ভবনটিতে... আরও পড়ুন

ভিবান্ডি এলাকায় তিনতলা

স্ত্রীর গর্ভে ছেলে না মেয়ে সন্তান তা নিশ্চিত হতে সাত মাসের অন্ত্বঃসত্তা স্ত্রীর পেট কেটে... আরও পড়ুন

স্ত্রীর গর্ভে ছেলে না মেয়ে সন্তান

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবাকে হত্যার চেষ্টা ঘটনায় গ্রেপ্তার রবিউল... আরও পড়ুন

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।