রহস্যের আড়ালে পেত্রা নগরী

রিডার::রুমি

শুক্রবার, ৩০ মার্চ, ২০১৮ ০৮:৪৮:২২ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  

পাহাড় আমাকে আকর্ষণ করে।ভয়াবহ।এতোটাই যে যখন কোন পাহাড়ের সামনে দাঁড়াই মনে হয়, শহরে জীবন, যান্ত্রীক নিয়মের কাঁটা, সব ছেড়ে পাহাড়ে যেয়ে ঘর বাঁধি।যেখানে নেই কোন স্বার্থপরতার সমীকরন।

আর সেটা যদি হয় লাল ইটের পাহাড়, তখন মনে হয় গোটা জীবনটাই যদি কাটিয়ে দেওয়া যেতো এই পাহাড় দেখে।এই যে আকর্ষন, কী যে তার মায়া তা বলে বোঝানো যায় না।

জানুয়ারি মাসের শেষে কায়রোতে অফিসের কাজে যাওয়া পড়লো।পিরামিড দেখার সুযোগ আগেও হয়েছে । পেত্রা দেখতে চাইছিলাম, অনেক দিন ধরে।সরাসরি ঢাকা থেকে জর্ডান বেশ খরুচে ব্যাপার হয়েই যায়।তাই এবারকার সুযোগটা মিস করলাম না।

তিন দিনের প্ল্যান করে চললাম পেত্রা দেখতে।

পেত্রা আধুনিক সপ্তমাশ্চর্যের একটি। দক্ষিণ জর্ডানের রাকমু শহরের এক অনবদ্য স্থাপত্যশৈলী পেত্রা। আরবের সেই প্রাচীন সময়ের নাবাতাইয়ান্সের রাজধানীতে গড়ে তোলা হয় পাহাড় খোদাই করে বানানো স্থাপত্যশৈলী। ৩১২ খ্রিস্টপূর্বাব্দে এটি তৈরি করা হয়েছে। পৃথিবীর যে স্থানগুলোতে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পর্যটকরা ছুটে যান, তার মধ্যে অন্যতম নগরী।

প্ল্যান মোতাবেক আমি যাচ্ছি।

ওয়াদি রাম হয়ে পেত্রা পড়বে।যাওয়ার পথে শোবাক নগরীও দেখে নেবো।ফের সেখান থেকে আম্মান হয়ে ঢাকা।

আমি খরচ বাঁচাতে আগেই থেকেই ‍আম্মান-ঢাকা টিকিট বলে রেখেছিলাম।ভাগ্যিস বিদেশী এনজিওতে কাজ করি।নয়তো।পেত্রা নগরী দারুণ খরুচে শহর। ১৯৮৫ সালে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়ার পর থেকে পেত্রা নাকি বড় খরুচে।অন্তত আমাদের মতো চাকরিজীবীদের কাছে ধরাছোঁয়াটা একটু কঠিন।

যা হোক আম্মান-ঢাকা টিকিট বাদ দিলে পড়ে আমার ট্যাক থেকে সর্বসাকুল্যে ৬০০ ডলার খসেছে।

একটু আরামদায়ক যাত্রা করা জরুরি ছিল। মরু এলাকা বলে।

যাহোক কায়রো থেকে ওয়াদি রামে আগের রাতে ১ টার দিকে পৌঁছলাম।সকাল আটটায় সাইড সিন শুরু।গাইড রাতে এসেই আমার চেহারা চেকে নিলো।পাছে কে না কে?

টিভিতে বেদুইনদের দেখি কালো হিজাব মাথায় জড়িয়ে মরু বুকে পাড়ি দেয়।ভাবলাম সকালে এমন কিছু একটা যোগাড় করলে মন্দ হতো না।

ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়েছি, আর এক ঘুমে রাত কাভার।

আমার গাইড এসলাম বড় ভাল মানুষ।গ্রুপ টুর হলেও ঠিক ঠিক খোঁজ নিতে চলে এসেছে।কোন মতে নাকে মুখ পানি দিয়ে ব্রেকফাস্ট টেবিলে আসলাম।

আমি ভ্রমনে অভ্যস্ত এবং ঘুম কাতুর।সকালে পুরোপুরি নাস্তা না হলে আমার চলে না।নাস্তার টেবিলে অ্যারাবিক নান, ডিম(দুনিয়া সব মানুষের সকালে নাস্তা!) দুই পদের জ্যাম, মাখন, পরিজ (পরিজ মাখন দিয়ে কে খায়!)।যা হোক ঢেকুর তুলে এসলামের সঙ্গে দৌড়ালাম।

এইবারই সবচেয়ে বড় ঝটকা মুখে এসে লাগলো।কায়রো থেকে বিমানে চেপে আকাবা, সেখান থেকে টুর গাইডের জিপে ওয়াদি রামে রাতে পৌঁছেছিলাম, আগেই বলেছি।কিন্তু রাতে বাবা এসলাম যখন হোটেলে এনে রুমে পাঠিয়েছে তখন গোসল সেরে এদিক-সেদিক তাকানো সুযোগ ছিল না।বড় ক্লান্ত ছিলাম।সকালে দরজার বদলে কাপড় সরাতে গিয়ে দেখলাম, সূর্যের কড়া আলো মুখে এসে শুধু লাগছে না, পুড়িয়ে দিচ্ছে।

 

 

জ্বী, আমি তখন ওয়াদি রামের মরুভুুমিতে।পাশ দিয়ে সারি তাবু।সেগুলোই থ্রি-ফাইভ স্টার হোটেল।আমাদের জিপ হাজির।আমার জন্য ৩০ মিনিট অপেক্ষা করতে হল বাকীদের।

আমাদের সঙ্গে আরও চারজন আছে।সানজত-সাহিল ভারতের পাঞ্জাব থেকে আর সুদানি আহির-মাহেরাব।আর বাংলাদেশী রুমি।

সঙ্গে দু-একটা বিদেশীনি থাকলে ক্ষতি কিছু ছিল না।আমার ভাই কপাল খারাপ।

বি-শা-ল লাল বালুর মরুভুমি।কি অদ্ভুত!উপরে নীল আকাশ।নীচে মরুভুমি।কিছুদূর পর পর বেদুইনদের দলগুলো দেখা যায়।পর্যটকদের ঘিরে সেখানে আবার জায়গায় জায়গায় দোকান পাট।

 

 

 

বিকেলে পেত্রা পৌঁছবার আগে আমাদের দুজন করে একটি উটের ওঠার সুযোগ হল।দুপুরে খাবার মরুবুকেই হল।দুম্বার মাংসা ভাজা, কালো চালের ভাত সঙ্গে জলপাইয়ের আচার আর চিকেন বিরিয়ানি।

বিকেল নাগাদ চলে আসলাম পেত্রায়।হোটেল পেত্রা।দারুন জায়গা।

রাতে নিজের মতো আসে পাশের জায়গাগুলো দেখছিলাম।অনেকটা পর্যটকদের আকর্ষন ধরে রাখতে একটু পুরোনো ধাঁচের করেই ধরে রাখা হয়েছে পেত্রার বাজার।

একটু বলে নেই,  নিতেই নাবাতাইয়ানরা পানির উৎস নির্মাণে দক্ষ ছিল। পাশাপাশি পাথরে খোদাই করে ভাস্কর্য নির্মাণেও বিখ্যাত হয়ে ওঠে তারা। জেবেল-আল-মাধবা পর্বতের ঢালে অবস্থিত পেত্রা।

রাত আটটার দিকে এসলামের সঙ্গে পেত্রার সেই বিখ্যাত আলো দেখতে গেলাম।রাতের পেত্রা দেখা ্ইচ্ছে ছিল।আলো-আধাঁরের ফাঁকে আরও রহস্যময়ী পেত্রা।

 

 

সকালে এসলাম আমাদের পেত্রায় নিয়ে গেল।আগের রাতে টিকিট কেনা ছিল, দুই দিনের।  যদি পুরো পেত্রা (৮ কি.মি.) ঘুরতে চান তো আপনাকে ১৪০ ডলার দিয়ে টিকিট কিনতে হবে।রাতের পেত্রা খানিকটা দেখবো বলে ৪ কি.মি. মিলিয়ে আমি নিয়েছিলাম ২০০ ডলারের টিকিট।

পেত্রা ঢোকার মুখে একটা আলাদা অনুভুতি আছে।সদরের সেই সুবিশাল দরজা যেন আপনাকে স্বাগতম জানায়।

 

 

ভেতরে রহস্যের শেষ। ভেবে দেখুন দু’হাজার বছর আগে কী মহিমা। কেবল পাথরে খোদাই করা শিল্পকর্ম দেখেই আপনার গোটা দিন চলে যেতে পারে। তবে ভেতরে উটের পিঠে চড়ে ঘোরার ব্যবস্থা রয়েছে। হাঁটতে হাঁটতে অস্থির হয়ে গেলে চ্যারিয়টে চড়েও ঘুরতে পারবেন। তবে অনেক জায়গায় হয়তো যেতে পারবেন না। যেমন- গাধার পিঠে চড়ে ২০ মিনিট ভ্রমণ না করতে পারলে মোনাস্টেরিতে যেতে পারবেন না।

আমি তো যাবোই।এতোদূর এসে না দেখে ফিরে যাবো!

মোনাস্টেরিতে গিয়ে ফিরে আসা এবং চারপাশ ঘুরে দেখতে ৭/৮  ঘণ্টার লাগেই।

 

 

রোমান থিয়েটার, গোরস্থান, নাবেতিয়ানদের দেবতাদের মূর্তিগুলো দেখার মতো।

রাত হয়ে গেলেও আমরা কেউ ফিরতে চাইছিলাম না।রাতের খাবার পেত্রার বাইরে গিয়ে  সারলাম।

 

 

মানসাফ, জর্ডানের ঐতিহ্যবাহি খাবা। লাইট শো আরেকবার না দেখলেই না।হোটেল পেত্রার কাছে পিঠে হওয়াতে সুবিধা হল।

পরদিন জিপে চড়েই শোবাক শহরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ক্রুসেডার প্রাসাদে গেলাম।পাহাড়ে ঘেরা রুঢ় এলাকার মাঝে প্রাসাদটি দ্বাদশ শতাব্দীতে নির্মিত।১১১৫ সালে ক্রসেডার রাজা প্রথম বালদউইন এটির শৈল্পিক নির্মাণ করেন।পরে মুসলিম রাজা সালাউদ্দিনের হাতে তার বেদখল হয়ে যায়।চর্তুদশ শতাব্দিতে  মামলুকস নামের আরেক ক্রুসেডার রাজা সেটি বগলদাবা করেন।

 

 

প্রাসাদের শুরু দুটো চার্চ দেখা গেলো।তবে আরও ভেতরে যেতে চাইলে টর্চ নিয়ে যাওয়াই ভাল।এতো বড় প্রাসাদটির অনেক জায়গাই পুনঃসংস্কারের ছোঁয়া আছে।

রাতটুকু পেরোতে আম্মানে পথ ধরলাম।সেই গল্প না হয় আরেক দিন হবে।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মানুষ বরাবরই নিজেদের নিয়ে উদাসীন। নভেল করোনা ভাইরাসে গোটা বিশ্ব যখন আক্রান্ত হয়ে... আরও পড়ুন

আক্রান্ত হয়ে স্বেচ্ছায়

নভেল করোনা ভাইরাসের প্রকোপের সময় যশোরের মণিরামপুরে মাস্ক না পরে বাইরে আসায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে... আরও পড়ুন

এসিল্যান্ডের নিগ্রহের

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নামই আছে তিনি অর্থের কাঙ্গাল।যে ক্লাব যতো দাম তুলবে তিনি সেই ক্লাবের।কিন্তু কভিড-১৯... আরও পড়ুন

ভাইরাসের প্রকোট যেন

  নভেল করোনাভাইরাসের প্রকটে গত কয়েক সপ্তাহে বেকায়দায় পড়েছে গোটা ইউরোপ।শুরুটা চীনে হলে গত কয়েক... আরও পড়ুন

কয়েক সপ্তাহে তা গোটা

কভিড-১৯ ভাইরাসে থমকে গেছে গোটা বিশ্বের মানুষের দৈনন্দিন জীবন। পর্যাপ্ত পরিমাণে কিট না থাকায় করোনাভাইরাস শনাক্ত... আরও পড়ুন

শনাক্ত করতে হিমশিম

কভিড-১৯ সংক্রমণের সিকি ভাগই মৃদু বা মাইল্ড অবস্থা থেকে এমনিতেই সেরে যায়।তবে এখনও পর্যন্ত ১৫... আরও পড়ুন

ভাইরাস সিভিয়ার পর্যায়

কভিড-১৯ ভাইরাসের আক্রমণে ধরাশায়ী গোটা বিশ্ব। আজ শনিবার পর্যন্ত নভেল করোনায় মৃতের সংখ্যা অন্তত ২৭... আরও পড়ুন

ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত

এক নভেল করোনাভাইরাসের ভয়ে বিশ্ববাসীর জীবন ওষ্ঠাগত। বাঘা বাঘা নেতাদের ঘায়েল করতে দ্বিধা করেনি কভিড-১৯... আরও পড়ুন

মাঝেই একটু সান্তনা

‘বাড়িত চাল নেই।বউ আছে, বাচ্চা আছে, আমিও তো আছি।রোগে সোগে আলাদা করি মরতে হবে না।... আরও পড়ুন

কথাগুলো বলছিলেন

জ্বর, সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত বগুড়ার শিবগঞ্জের এক মুদির দোকানি।গতকাল শুক্রবার রাতে অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালে নেওয়া... আরও পড়ুন

নেওয়া চেষ্টা করেন তার

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

যুক্তরাষ্ট্রকে জেরুজালেমকে ইসরাইলী রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি না দিতে জর্ডানের আহবান

রিডার:জর্ডান যুক্তরাষ্ট্র, জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি পরিণতি কঠিন হবে বলে সতর্ক করেছে জর্ডান। বিবিসি বলছে, বিষয়টিতে ওয়াশিংটনের স্বীকৃতি আরব ও মুসলিম বিশ্বে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি করবে বলে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনকে জানিয়েছেন জর্ডান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আয়মান সাফাদি। সম্প্রতি পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলো... আরও পড়ুন