বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ ধারা আরও বাড়বে

রিডার::ঢাকা

সোমবার, ৮ জুন, ২০২০ ০১:৪৮:৪৪ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
সংখ্যা, মৃতের হারও।

দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের তৃতীয় মাসে পরিস্থিতি কাঁটা ক্রমান্বয়ে অবনতির দিকে এগুচ্ছে।

বাড়ছে শন্যাক্ত রোগীর সংখ্যা, মৃতের হারও।এমাসেই শন্যাক্ত রোগীর সংখ্যায় শীর্ষ কুড়িটির দেশের মধ্যে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ।

আক্রান্ত শীর্ষে থাকা অধিকাংশ দেশেই চতুর্থ মাসেও সংক্রমণের উর্ধ্বগতি ছিল।

কোন কোন দেশে পঞ্চম মাসেও সেটি কমেনি।তবে ইউরোপের তুলনায় এশিয়া ও আমেরিকা মহাদেশে সংক্রমণের উর্ধ্বগতি দীর্ঘমেয়াদি অবস্থান করছে।

তবে বাংলাদেশর মধ্যে উন্নয়নশীল দেশের তুলনায় উন্নত দেশগুলোতে রোগী শন্যাক্তের পরীক্ষ, কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং (রোগীর সংস্পর্শে যারা এসেছিল), লকডাউন পরিস্থিতি অনেক ভাল।

সংক্রমণ চিত্র থেকে বিশ্লেষকেরা আশঙ্কা করছেন, বাংলাদেশে চতুর্থ মাসেও দেশে সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকবে। পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার শঙ্কা আছে। চলতি সপ্তাহের শেষ দিক থেকে এর ইঙ্গিত পাওয়া যেতে পারে। এখনই কার্যকর ও কঠোর ব্যবস্থা না নিলে অন্তত আরও এক মাস সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গতকাল রবিবার পর্যন্ত দেশে মোট শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা ৬৫ হাজার ৭৬৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৮৮৮ জন, সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৯০৩ জন।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের দেহে কোভিড-১৯ শনাক্তের কথা জানানো হয়। তাঁদের দুজন ছিলেন ইতালিফেরত। অন্যজন আক্রান্ত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন। এখন পর্যন্ত অন্তত ৮টি দেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের মাধ্যমে দেশে এই ভাইরাস ছড়ানোর প্রমাণ পাওয়া গেছে। শুরুতে বিদেশফেরত ও তাঁদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের মধ্যে সংক্রমণ সীমিত থাকলেও পরে সেটা ব্যাপক আকার ধারণ করে।

দ্বিতীয় মাসে রোগী শনাক্ত হয় ১২ হাজার ৯১৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ। আর তৃতীয় মাসে গতকাল রোববার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে মোট ৫২ হাজার ৬৩৫ জন, যা মোট আক্রান্তের শতকরা ৮০ ভাগ।

সংক্রমণ ঠেকাতে ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে কার্যত লকডাউন (অবরুদ্ধ) পরিস্থিতি তৈরি হয়। তবে সেটা ছিল ঢিলেঢালা। এরপর ২৬ এপ্রিল থেকে পোশাক কারখানা খুলে দেওয়া হয়। এর দুই সপ্তাহ পর সংক্রমণের দশম সপ্তাহে (১০–১৬ মে) বা তৃতীয় মাসের শুরু থেকে পরিস্থিতি দ্রুত অবনতি হতে শুরু করে। সে ধারা এখনো অব্যাহত আছে।

চলতি সপ্তাহ থেকে সংক্রমণ শনাক্তের হার আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ গত মাসের শেষের দিকে প্রচুর মানুষ ঈদ উপলক্ষে গ্রামে যাতায়াত করেছেন। কেনাকাটার জন্য দোকানপাটও ছিল উন্মুক্ত।

ঈদের পর গত ৩১ মে থেকে ছুটি বা লকডাউনও উঠে গেছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে এর প্রভাব দেখা যাবে বলে মনে করছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও ভাইরোলজিস্ট অধ্যাপক নজরুল ইসলাম।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে ইলিশের দাম কমেছে।একইসঙ্গে আকার ভেদে হাঁস-মুরগির দাম ১০ থেকে কুড়ি টাকা কমেছে।তবে... আরও পড়ুন

সব ধরণের মাছের দামেই

যুক্তরাষ্ট্র তাদের পররাষ্ট্র নীতিতে ‘নিষ্পত্তিমূলক পরিবর্তন’ না আনা পর্যন্ত তার দেশের সঙ্গে নতুন বৈঠকের কোনো... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ

অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে সঙ্গে চীনের সম্পর্ক এখন অতি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। কঠিন... আরও পড়ুন

কঠিন এই পরিস্থিতিতে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে বাজেটে অধিবেসনের শেষ দিনে বলেছেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কে... আরও পড়ুন

দুর্নীতি ও অনিয়মে

যুক্তরাষ্ট্রে শিক্ষারত বিদেশীয় ছাত্ররা অনলাইনে ক্লাস করতে পারবে না বলে দেশটির সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে... আরও পড়ুন

হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়

ইরানী জেনারেল ও আল কুসের প্রধান কাসেম সোলাইমানির হত্যাকান্ডকে আর্ন্তজাতিক আইন ও জাতিসংঘ ঘোষণার লঙ্ঘণ... আরও পড়ুন

কাসেম সোলাইমানির

চলমান মহামারীর মধ্যে পরীক্ষা না নেওয়ায় শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশন দেওয়া হচ্ছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে... আরও পড়ুন

শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশন

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে চিকিৎসার নামে প্রতারণার মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধঅজ্ঞা... আরও পড়ুন

মো. সাহেদের দেশত্যাগে

বন্যপ্রাণী অভয়রণ্যকে ধ্বংসের দিকে পৌঁছে দেওয়া আজ গোটা বিশ্ব করোনা ভাইরাসের মতো মহামারীতে ধুকছে।বন্যপ্রাণীর সুরক্ষায়... আরও পড়ুন

বন্যপ্রাণীর সুরক্ষায় ও

সাত সকালে অফিসে যাওয়ার জন্য তৈরী হচ্ছেন।অনেক দিন পছন্দের টি-শার্টটা গায়ে চাপানো হয় না। পড়েছেন... আরও পড়ুন

তো ঠিকই, আয়না সামনে

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।