ফি নির্ধারণ করায় করোনা নমুনা পরীক্ষা কমছে

রিডার::আদিত্য রয়

সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০ ০২:১৮:৫৯ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
করোনা নমুনা পরীক্ষা কমে আসছে।

গত কয়েক সপ্তাহ থেকে ধীরে ধীরে করোনা নমুনা পরীক্ষা কমে আসছে। মূলত ফি নির্ধারণের কারণেই অনেকে পরীক্ষা করানো থেকে সরে আসছেন। এতে করে সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিনিয়ত বাড়ছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সমন্বয় কমিটি তাদের কার্য বিবরণীতে করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা কমে যাওয়ার বেশ কিছু কারণ উল্লেখ করেছে।অধিদপ্তরের পর্যালোচনায় পরীক্ষার সংখ্যা কমে যাওয়ার আট কারণের প্রথমে আছে পরীক্ষার ফি নির্ধারণ। বাকি কারণগুলো হলো —

হাসপাতাল ছাড়ার আগে রোগীর শরীরে করোনার অস্তিত্ব জানতে পরপর দুটি পরীক্ষা না করানো।

উপসর্গ নেই, এমন রোগীরা কম আগ্রহী হচ্ছেন।

সার্বিকভাবে দেশে করোনার প্রকোপ কমে গেছে।

জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন হওয়ার আশঙ্কায় অনেকে পরীক্ষা করাচ্ছেন না।

জীবিকাসংকটের মুখে পড়েছেন বা পড়তে পারেন, এই আশঙ্কায় অনেকে পরীক্ষা করাচ্ছেন না।

রোগী গুরুতর অসুস্থ না হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বাড়িতে টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করছে এবং বন্যার কারণে যোগাযোগব্যবস্থার অবনতি হওয়ায় কোথাও কোথাও পরীক্ষা কমে গেছে।

কার্যবিবরণীতে দিনে ২৪ হাজার পরীক্ষা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল, এমন কথার উল্লেখ আছে।

একাধিক জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ বলছেন, কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই অনুমানের ওপর ভিত্তি করে ফি নির্ধারণ করেছিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এখনো অনুমানের ওপর কথা বলছে তারা। করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষাকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তর কখনো প্রয়োজনীয় গুরুত্ব দেয়নি।

করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রোগ শনাক্তকরণ পরীক্ষা খুবই জরুরি বলে মনে করেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনাবিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা জানান, মহামারির সঠিক পরিস্থিতি জানতে হলে পর্যাপ্ত পরিমাণে রোগ শনাক্তকরণ পরীক্ষা হওয়া দরকার। তিনি বলেন, যাদের দরকার, এমন কেউ যেন পরীক্ষা থেকে বাদ না পড়েন, এমন উদ্যোগ এখনই দিতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও মহামারির শুরু থেকে পরীক্ষার গুরুত্বের কথা বলে আসছে। সংস্থাটি বলেছে, পরীক্ষা করুন, পরীক্ষা করুন, পরীক্ষা করুন। করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজন প্রতিটি মানুষকে পরীক্ষা করুন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ডে বাংলাদেশের জনসংখ্যা অনুযায়ী দৈনিক ২৪ থেকে ২৫ হাজার নমুনা পরীক্ষা হওয়া দরকার। বাংলাদেশ এক দিনের জন্যও ২০ হাজার নমুনা পরীক্ষা করতে পারেনি। এ ব্যাপারে কারও জবাবদিহি করতে দেখা যায়নি।

গত জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার দায়িত্বে ছিল সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) হাতে। কোনো কোনো দিন মাত্র একটি বা দুটি নমুনা পরীক্ষা করেছে আইইডিসিআর। আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) মতো প্রতিষ্ঠানের উচ্চ মানসম্পন্ন ল্যাবরেটরি থাকার পরও তাদের নমুনা পরীক্ষার অনুমতি দিতে বিলম্ব করেছে।

আরও একাধিক সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে একই আচরণ করেছে আইইডিসিআর।কিন্তু আইইডিসিআরের কাছ থেকে পরীক্ষার নিয়ন্ত্রণ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে যাওয়ার পর সমস্যা দেখা দেয় পরীক্ষার মান নিয়ে।

এখন ৮০টি ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। কিন্তু পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে নানা অভিযোগের কথা গণমাধ্যমে এসেছে। যেমন বিলম্বে পরীক্ষার ফল পাওয়া, পরীক্ষার ফল জানতে না পারা, এক ব্যক্তিকে একই দিনে পজিটিভ ও নেগেটিভ ফল জানানো, পরীক্ষা করাননি, এমন ব্যক্তিকে রোগী বলে শনাক্ত করা। জেকেজি বা রিজেন্টের পরীক্ষার সনদ জালিয়াতির ঘটনাও প্রকাশ পেয়েছে।

ল্যাবরেটরির যন্ত্রপাতি বা সক্ষমতা সরেজমিন যাচাই না করেই বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানকে করোনা পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সংবাদপত্রে প্রতিবেদন ছাপার পর এমন পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন বাতিলও করা হয়।

পরীক্ষার ফি নির্ধারণে সরকারের যুক্তি ছিল, বিনা মূল্যের সুযোগ নিয়ে প্রয়োজন নেই, এমন অনেকেই পরীক্ষা করাচ্ছেন। যদিও অপ্রয়োজনে কত মানুষ পরীক্ষা করাচ্ছেন, তার হিসাব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তরে ছিল না।

বুথে বা হাসপাতালে নমুনা দিলে ২০০ টাকা এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করলে ৫০০ টাকা ফি বাধ্যতামূলক হয় জুলাই মাসের শুরু থেকে। তখন থেকেই দৈনিক পরীক্ষা কমতে দেখা যায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ফি নির্ধারণের কারণে পরীক্ষা কমেছে।

গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক সানিয়া তহমিনা জানান, মূল্য নির্ধারণের সিদ্ধান্ত হয়েছে ওপর থেকে।

গত মাসের ২৬ তারিখ পরীক্ষার সংখ্যা বেড়ে হয়েছিল ১৮ হাজার ৪৯৮। এর তিন দিন পর ফি নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। এক মাস পর, অর্থাৎ ২৫ জুলাই পরীক্ষা কমে হয় ৯ হাজার ৬১৫।

ওই দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বুলেটিনের শুরুতে মানুষকে বুথে এসে নমুনা পরীক্ষা করার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

সৌদি আরবের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান ও নিরাপত্তা উপদেষ্টা সাদ আল-জাবরির ছেলে-মেয়েকে কারাবন্দী অথবা হত্যা করা... আরও পড়ুন

সৌদি আরবের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান

নিজেদের ভুলের মাশুল নিজেদেরকেই গুণতে হলো ইসরায়েলকে। নিজেদের উপশহরে ভুল করে রকেট ছুড়েছে ইসরাইলি সামরিক... আরও পড়ুন

নিজেদের ভুলের মাশুল নিজেদেরকেই গুণতে

ফের মা হতে চলেছেন বি-টাউন অভিনেত্রী কারিনা কাপুর খান। ‘সাইফিনা’ জুটি আপাতত দিন গুনছেন তাঁদের... আরও পড়ুন

তৈমুরের অপেক্ষা

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের মাধ্যমে তেহেরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানোর যে চেষ্টা করছে ওয়াশিংটন করে... আরও পড়ুন

ওয়াশিংটন করে যাচ্ছে তা

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরশকো এক যৌথ ‍বিবৃতিতে বলেছেন, তাদের তৈরী ভ্যাকসিন... আরও পড়ুন

আগে স্বাস্থ্য কর্মীরা এবং

করোনা চিকিৎসায় নানা কেলেঙ্কারির মাঝে পদ থেকে সরে দাঁড়ানো স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক ডা. আবুল... আরও পড়ুন

বিবেকবোধ ও সদিচ্ছা থেকে নিজের জীবনকে

বি-টাউনের মুন্নাভাই সঞ্জয় দত্ত ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন।বর্তমানে তাঁর ক্যান্সসার তৃতীয় পর্যায় রয়েছে।শিগগিরই চিকিৎসার জন্য... আরও পড়ুন

সঞ্জয় দত্ত ফুসফুসের

মুক্তি পেয়েছে পরিচালক মহেশ ভাটের ‘সড়ক ২’ সিনেমার ট্রেলার। নব্বইয়ের দশকের ছবি ‘সড়ক’ সিনেমার আমেজ... আরও পড়ুন

রেখেই সিক্যুয়েল তৈরী

ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলে তুর্কি সামরিক ড্রোন হামলায় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের দুই কর্মকর্তা নিহত... আরও পড়ুন

কুর্দিস্তান অঞ্চলে তুর্কি

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী জো বাইডেন তাঁর রানিং মেট হিসাবে ভারতীয় বংশোদ্ভুত... আরও পড়ুন

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।