প্রথম প্রেমিকের সঙ্গে মাকে বিয়ে দিয়েছিলেন কন্যারা

রিডার::ভারত

শনিবার, ১৬ মে, ২০২০ ০৮:০৪:৪৬ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
কোচিং সেন্টারে পড়াতেন

অনিতা ও বিক্রমণ

সময়টা ১৯৮৪। অনিতা তখন দশম শ্রেণির ছাত্রী। ভারতের কেরালা শহরে কোল্লামের ওয়াচিরা গ্রামে থাকতেন কিশোরী অনিতা। সেই গ্রামেই কোচিং সেন্টারে পড়াতেন বিক্রমণ। স্থানীয় রাজনৈতিক কার্যকলাপেও যুক্ত ছিলেন তিনি।

তাঁরই কোচিং সেন্টারে টিউশন পড়তে যেতেন অনিতা। দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও দেখা হত তাঁদের। এইভাবেই একপর্যায় তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।দিনে দিনে সেই সম্পর্ক আরও গভীর হয়। কয়েক বছর পরে পরিবারের কাছে বিক্রমণের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের কথা জানান অনিতা। কিন্তু সেনাবাহিনীর অ্যাসিট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার অনিতার বাবা সেই সম্পর্ক মেনে নেননি।

পরে সেই গ্রামেরই অন্য এক যুবকের সঙ্গে অনিতার বিয়ে দেন তিনি।অন্য পাত্রের সঙ্গে অনিতার বিয়ের খবর পেতেই মন ভেঙে যায় বিক্রমণের। ওয়াচিরা গ্রাম ত্যাগ করেন তিনি। চলে যান কোট্টয়মের চিভারাতে। সেখানে গিয়ে তিনি আবার শিক্ষকতা শুরু করেন।

প্রেমিককে হারিয়ে স্বামীর সঙ্গেই বিয়ের পর সংসার করছিলেন অনিতা। তাঁদের দুই কন্যা সন্তানও হয়। বড় মেয়ে অথিরা ও ছোট মেয়ে অ্যাশলিকে নিয়ে ছিল অনিতার জীবন। তাঁর স্বামী ছিল মদ্যপায়ী। অথিরার বয়স যখন আট, তখন আত্মহত্যা করেন অনিতার স্বামী।

ছোট দুই মেয়েকে একাই মানুষ করতে থাকেন অনিতা। জমি জায়গা বিক্রি করে, নিজে বিভিন্ন রকম কাজ করে রোজগার করেন। তা দিয়ে লেখাপড়া শেখান দুই মেয়েকে। এ ভাবেই কেটে যাচ্ছিল অনিতার জীবন।

মেয়েরাও বড় হতে থাকে। তাঁরও বয়স বাড়তে থাকে।সময়টা ২০১৬। অনিতার দুই মেয়ে তখন বেশ বড় হয়ে গিয়েছে। শিক্ষকতার জীবন থেকে অবসর নিয়ে বিক্রমণও ফিরে এসেছেন ওয়াচিরাতে। সে বছরই এক দিন বিক্রমণের সঙ্গে দেখা হয় অনিতার।জীবনের প্রথম প্রেমিকের সঙ্গে দেখা হতেই পরিণতি না পাওয়া প্রেমের বেদনায় মন যেন আরও ভারাক্রান্ত হয় অনিতার।

কিন্তু তখন মেঘে মেঘে অনেক বেলা হয়ে গিয়েছিল। এক দিন কী মনে করে নিজের প্রেম হারানোর গল্প মেয়েদের বলেন তিনি।

অথিরা এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন — নিজের জীবনের গল্প বলার সময় মায়ের গলা বুজে আসছিল। প্রেমভঙ্গের ব্যথা মায়ের চোখে মুখে ফুটে উঠছিল।

তার পর থেকেই মাকে তাঁর পুরনো প্রেমিকের সঙ্গে মিলিয়ে দেওয়ার কথা ভাবতে থাকেন অথিরা ও অ্যাশলি। দুই বোন মিলে ঠিক করেন ফেলেন বিক্রমণের সঙ্গে বিয়ে দেবেন মায়ের। কিন্তু কী ভাবে?

সাহস সঞ্চয় করে এক দিন তাঁরা দেখা করেন বিক্রমণের সঙ্গে। জানান তাঁদের ইচ্ছার কথা। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। অথিরা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিক্রমণ তাঁদের ফিরিয়ে দিয়ে বলেন — তোমরা বড় হয়েছ। মায়ের ভবিষ্যত নিয়ে ভাবার আগে নিজেদের ভবিষ্যত নিয়ে ভাবো। সেটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

কিন্তু হাল ছাড়েননি তারা। চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। এক পর্যায় বিক্রমণের মন গলেই যায়।

২০১৬-র ২১ জুলাই বিক্রমণের সঙ্গে বিয়ে হয় অনিতার। ৫২ বছর বয়সে নিজের হারানো প্রেম ফিরে পান অনিতা। নিজেদের বন্ধুবান্ধব ও পরিচিতদের উপস্থিতিতে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রথম প্রেমিককে মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেন দুই মেয়ে।

দুই যুবতীর উদ্যোগে ফের জোড়া লাগে ভেঙে যাওয়া প্রেম।তবে এই বিয়ে দিতে গিয়ে অনেক বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছিল অথিরা ও অ্যাশলিকে। তাঁদের অনেক নিকট আত্মীয়ই প্রথমে আপত্তি জানিয়েছিল এই বিয়েতে। কিন্তু সারা জীবন কষ্ট পাওয়া মায়ের মুখে হাসি ফোটাতে বদ্ধপরিকর মেয়েদের ইচ্ছার কাছে টিকতে পারেনি সেই বাধা।

অথিরা ভাষায়, আমার বয়স যখন আট, তখন বাবা আত্মহত্যা করেন। মাই দুঃসময়ে আমাদের আগলে রেখেছিল। আমাদের পড়াশোনা করাতে সারা জীবন প্রচুর পরিশ্রম করেছে মা। আমাদের স্বপ্নপূরণের জন্য নিজের সুখ বিসর্জন দিয়েছে। তাই মায়ের জীবনে একটু আনন্দ দিতে না পারলে আমাদের প্রতি তাঁর ভালবাসা মর্যাদা পাবে না।

বিক্রমণকে বিয়ের পর দুই মেয়ের সঙ্গে আনন্দেই কেটেছে অনিতার জীবন। চার বছর আনন্দে কাটার পর গত মাসে মারা যান বিক্রমণ। বিক্রমণের স্মৃতি রোমন্থন করতে গিয়ে সম্প্রতি অথিরা বলেছেন — আমরা ওঁকে খুব মিস করি। কিন্তু ভেঙে যাওয়া প্রেমকে পরিণতি দিতে পেরে আমরা খুব খুশি। উনি ফিরে এসে হাসি ফুটিয়েছিলেন মায়ের মুখে।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

সরকার দেশে লক ডাউন ঘোষণা না করে সাধারণ ছুটি দিয়ে বড় রকমের ভুল করেছে বলে... আরও পড়ুন

রাজধানী গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অন্তত পাঁচজন কভিড-১৯ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার রাতে... আরও পড়ুন

হাসপাতালটির নিচের

ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় বাংলাদেশের সঙ্গীতশিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেলের বিরুদ্ধে মামলা... আরও পড়ুন

বিরুদ্ধে মামলা ঠুকেছেন

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমাতে ঘরে থাকার মেয়াদ আর বাড়ছে না। তবে আগামী ৩১ মে থেকে... আরও পড়ুন

পর্যন্ত স্বাস্থ্য মেনে সীমিত

কথায় আছে, প্রেমের মরা জলে ডুবে না। একবার ফের সেই সত্য প্রমাণ করলেন যুক্তরাজ্যের চিকিৎসক... আরও পড়ুন

জলে ডুবে

গত এক দিনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শন্যাক্ত হয়েছে আরও এক হাজার... আরও পড়ুন

এক হাজার ৫৪১জন। এ

যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ নীতির বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিকভাবে  রুখে দাঁড়ানোর এখনই সময়। যুদ্ধে হতাহত মার্কিন সেনাদের স্মরণ করার... আরও পড়ুন

ইরানের পররাষ্ট্র

দেশের সব ধরণের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সব ধরণের রোগীকে পৃথক... আরও পড়ুন

পৃথক ইউনিটে চিকিৎসা

একবার ফের যুক্তরাষ্ট্র মনে করিয়ে দিলো গণতন্ত্র দেশটিতে এখনও মিলিয়ে যায়নি। প্রথমবারের মতো দেশটির প্রেসিডেন্ট... আরও পড়ুন

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পে

  ভারতীয় সীমান্তে উত্তেজনায় সর্বোচ্চ খারাপ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সামরিক বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট... আরও পড়ুন

প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

শবরীমালায় মন্দিরে নারীর প্রবেশকে কেন্দ্র করে সাংসদদের বাড়িতে হামলা

কেরালার শবরীমালা মন্দিরে দুই নারীর প্রবেশ ঘিরে রাজ্যজুড়ে সহিংসতা ও দাঙ্গার মধ্যেই তৃতীয় আরেকজন নারী ওই মন্দিরে ঢুকে প্রার্থনা করেছেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। শ্রীলঙ্কার নাগরিক শশীকলা গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাত নয়টায় ওই মন্দিরে ঢোকেন। মন্দিরে নারীদের প্রবেশ নিয়ে... আরও পড়ুন