‘জুডিশিয়াল ক্যু’ ষড়যন্ত্রে যারা জড়িত তাদের নাম জানা আছে-আইনমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, ৯ আগস্ট, ২০১৮ ০১:৩৮:২৯ পূর্বাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  

রিডার ফাইল ছবি

রিডার::ফরিদ হোসেন

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপি বলেছেন, শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীত্ব থেকে সরাতে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাকে দিয়ে ‘জুডিশিয়াল ক্যু’ করার ষড়যন্ত্র হয়েছিল। এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের সকলের নাম আমাদের জানা আছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন আইনমন্ত্রী।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে শফিউর রহমান মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের উদ্যোগে এই আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের জন্য আপিল বিভাগে এডহক ভিত্তিতে দুইজন বিচারক নিয়োগের জন্য সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদকে অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু তা করেননি। অথচ বঙ্গবন্ধুর খুনী ডালিমের স্ত্রীর লাশ আনতে বিমানবন্দরে পাঠানো হয়েছিল তখনকার প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবকে।

তিনি বলেন, ‘এভাবেই বাংলাদেশকে অপমান করা হয়েছে। অথচ এই মওদুদ আহমদ সাহেব বলে বেড়াচ্ছেন আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশের দরকার নাই। আমাদের নিরাপদ বাংলাদেশ দরকার। আমি বলতে চাই, উনাদের সেইভ বাংলাদেশের নমুনা হলো হত্যার বিচার হবে না, আর ক্যান্টনমেন্টে প্রত্যেক শুক্রবার হত্যাযজ্ঞ চলবে। এটা হচ্ছে উনাদের সেইভ বাংলাদেশের নমুনা।’

আইনমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত হয়েই যাচ্ছে। এটা ঠেকাতে প্রথম ষড়ন্ত্র হলো জুডিশিয়াল ক্যু করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীত্ব থেকে শেখ হাসিনাকে সরানো যায়। আপনারা দেখেছেন প্রথমে শ্রীলংকায় রাজা পাকসে তাদের দেশের প্রধান বিচারপতিকে নামিয়ে দিয়েছিলেন। তখন রাজা পাকসেকে নেমে যেতে হয়েছে। তারপরে সেটা গেছে পাকিস্তানে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে নামিয়ে দিয়েছে সেদেশের প্রধান বিচারপতি। তার পরে নেপাল। এরপর আমাদের এখানে সাবেক প্রধান বিচারপতি সিনহা সাহেবকে নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করেছে তাদের সকলের নাম কিন্তু‘ আমরা জানি। আপনারাতো চিনবেনই।

এসময় সামনে বসা আইনজীবীরা সমস্বরে ষড়যন্ত্রকারীদের নাম জানতে চান।

জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ড. কামাল হোসেনকে আপনারা চিনেন না। তাহলে, আর কি। এই ষড়যন্ত্র বিফলে গেছে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমাকে বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের বর্তমান বিচারকরা বলেছেন, তারা একটা অনুষ্ঠানে তাঁকে (ড. কামাল হোসেন) ডাকতে গিয়েছিলেন। তখন ড. কামাল হোসেন তাদের বকাঝকা করেছে। কেন তারা (বিচারপতি) প্রতিবাদ করেননি, কেন সিনহাকে সরানো হয়েছে।

আইনমন্ত্রী আরো বলেন, কোটা সংস্কারের আন্দোলনের কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে মুহুর্তে শুনেছেন, তিনি বলেছেন, কোটার ব্যাপারে যদি অন্য রকম কিছু হয়ে থাকে, তাহলে আমি নিশ্চয় দেখবো। দরকার হলে কোটা সম্পূর্ণ বাতিল করে দেবো। তারপরে তো আন্দোলনের কোনো প্রয়োজন হয় না। অথচ এই আন্দোলন যাতে চলমান থাকে, এই আন্দোলনের গোলাপানিতে মাছ শিকার করা যায় সেজন্য এই কামাল হোসেন, ড. মুহাম্মদ ইউনুছ, খালেদা জিয়ার সহযোগিরা এটার মধ্যে নাক গলানো শুরু করে।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনা হয়েছে। ছাত্ররা রাস্তায় নেমেছে, এটা তাদের যৌক্তিক দাবি। সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মেনেছেন। তারাও (শিক্ষার্থী) ফিরে যেতে চেয়েছে এবং তারা ফিরে গেছে। এরমধ্যেও একটা ষড়যন্ত্র হয়েছে, সরকারকে ফেলে দিতে হবে।’

‘ সুপ্রিম কোর্টের বারের সভাপতি-সম্পাদকের ঘাড়ে বসে ষড়যন্ত্র — । এগুলো কিসের আলামত। তারা আসলে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে চায়। এটা প্রতিহত করার সময় এসেছে। এখুনি এই ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে। ডিসেম্বরের নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে জয়ী করবো। এরপর আগামী মার্চে এই বারে আওয়ামী লীগের পতাকা ওড়াবো ‘

বঙ্গবন্ধু হত্যার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘অনেকেই বলে থাকেন বঙ্গবন্ধুকে ৭১ সালের পরাজিত শক্তি রাজাকার, আলবদররা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। এটা কি সত্যি?’

‘ইতিহাস কিন্তু তা বলে না। ইতিহাস বলে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল এই আওয়ামী লীগের কিছু কুচক্রী নেতা। তার মানে মীর জাফর আমাদের মধ্যে ছিল। এই মীর জাফর আমাদের মধ্যে না থাকতো তাহলে ওই একাত্তরের পরাজিত শক্তি বঙ্গবন্ধুর গায়ে হাত দেওয়ার ক্ষমতা রাখতো না। তাই এখন বলবো, আমরা যারা আছি তারা কি বঙ্গবন্ধুর প্রতি ঋণ শোধ করতে পেরেছি? পারিনি।’

তিনি বলেন, এই হত্যার ২১ বছর পর্যন্ত কিš‘ বঙ্গবন্ধু হত্যার এজাহার হয়নি। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনাকে আসতে ক্ষমতায় আসার পর মামলার এজাহার করেছেন তিনি, তিনিই মামলা বিচার করিয়েছেন। বিচার শেষ করেছেন। বিচার শেষে রায় কার্যকর করেছেন। তাহলে আমরা কি করেছি। আমরাতো সুবিধা ভোগ করেছি।’

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

গুজবে কান দিয়ে রংপুরের যে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেই শহিদুন্নবী জুয়েল আদতে ধর্মভিরু... আরও পড়ুন

আদতে ধর্মভিরু মুসলিম।

নভেম্বরের শুরুতেই নয়া প্রেসিডেন্ট পেতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডাকযোগে আগাম ভোট শুরু হয়েছে চলতি মাসে। এরই... আরও পড়ুন

ডাকযোগে আগাম ভোট

হাজী সেলিমপুত্র ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিস্কৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ... আরও পড়ুন

মোহাম্মদ জাহিদের তিন

টানা দশ ঘণ্টা রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বসে আলোচনার পর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতির... আরও পড়ুন

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে

হঠাৎ করে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে উদ্বিগ্ন আমজনতা। চলছে আন্দোলনও। দাবি উঠছে সর্বোচ্চ শাস্তি... আরও পড়ুন

ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায়

প্রায় চার মাস বাদে পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কাস পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন করেছে... আরও পড়ুন

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন

সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের পাঠানো একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস করেছে সৌদি এয়ার... আরও পড়ুন

বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনী বিতর্ক... আরও পড়ুন

নির্বাচনী বিতর্ক

পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের... আরও পড়ুন

ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।