জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা

রিডার::ঢাকা

বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ০৬:২৪:১৩ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
এ মামলায় আসামি

আজ বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুদকের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণা হবে। এ মামলায় আসামি সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী এবং তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ ৬জন।

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ওয়ান ইলেভেনের সময় দায়ের করা এ মামলাটি দায়েরের প্রায় দশ বছর পর রায় ঘোষণা হতে যাচ্ছে। আর এই দীর্ঘ সময় ধরে চলেছে আইনী লড়াই।

এই রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে চলছে টান টান উত্তেজনা। গ্রেফতার ও তল্লাশি চালাচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আগেই ডিএমপি থেকে রায় ঘোষনার দেন সভা-সমাবেশ মিছিল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। রাস্তা-ঘাটও অনেকটা ফাঁকা হয়ে পড়েছে। রায়ে কী হতে পারে সেই উদ্বেগ-উৎকন্ঠা কাজ করছে।

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ৩২ জন সাক্ষীর স্যাক্ষী গ্রহণ করতে আদালতের সময় লেগেছে ২শ ৩৬ কার্যদিবস। এছাড়া আসামিদের আত্মপক্ষ  সমর্থনের বক্তব্য উপস্থাপনে ব্যয় হয়েছে আদালতের ২৮ কার্যদিবস। যুক্তিতর্ক উপস্থাপনে বাদীপক্ষ একদিন সময় নিলেও আসামিপক্ষ নিয়েছে ১৫দিন।

দীর্ঘ আইনী লড়াইয়ের পর এখন শুধু  রায় ঘোষণার অপেক্ষা।

২০০৮ সালের ৩ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে রাজধানীর রমনা থানায় মামলাটি করে দুদক।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ১৯৯১-৯৬ সময়কালে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সোনালী ব্যাংক রমনা শাখায় প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিল নামে একটি চলতি হিসাব খোলেন।

ওই হিসাবে ইউনাইটেড সৌদি কমার্শিয়াল ব্যাংক থেকে ১৯৯১ সালের ৯ জুন বাংলাদেশী টাকায় ৪ কোটি ৪৪ লাখ ৮১ হাজার ২শ ১৬টাকা জমা পড়ে।

অনুদান প্রাপ্ত অর্থ এদেশে শত সহস্র প্রতিষ্ঠিত এতিমখানা থাকা সত্ত্বেও ১৯৯১ সালের ৯ জুন থেকে ১৯৯৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অন্য কোন প্রতিষ্ঠিত এতিম খানায় অর্থ প্রদান না করে এমনকি ওই অরফানেজ ট্রাস্ট তহবিল পরিচালনার জন্য কোন সরকারি নীতিমালা তৈরি না করে বা দেশের প্রচলিত এতিমখানা/ট্রাস্টের নীতিমালা অনুসরণ না করে তিনি সরকারি তহবিলের বিদ্যমান অর্থ নিজ পরিবারের সদস্যদের দিয়ে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে নিজের ছেলে তারেক রহমান ও আরাফাত রহমান এবং তার স্বামী মরহুম জিয়াউর রহমানের বোনের ছেলে মমিনুর রহমানকে দিয়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট গঠন করেন।

যা ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৯৩ সালে গুলশান সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে রেজিস্ট্রি করেন। ওই ট্রাস্ট্রের ঠিকানা ৬, শহীদ মইনুল রোড, ঢাকা সেনানিবাস, উল্লেখ আছে, যেখানে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া নিজেও বসবাস করতেন। তারেক রহমান তার পিতা মরহুম জিয়াউর রহমানকে দি অথর অব দ্য ট্রাস্ট তথা সেটেলর নিয়োগ করেন।

ওই টাস্ট্রের ডিড অব ট্রাস্টের ১৪ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী তারেক রহমান, আরাফাত রহমান ও মমিনুর রহমান সমন্বয়ে ৩ সদস্য বিশিষ্ট বোর্ড অব ট্রাস্টি গঠন করা হয়। ১৯৯৩ সালের ১৩ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিলে সোনালী ব্যাংক, রমনা কর্পোরেট শাখার চলতি হিসাব থেকে একটি চেকের মাধ্যমে উক্ত অনুদানের ২ কোটি ৩৩ লাখ, ৩৩ হাজার ৫শ টাকা তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক বগুড়ায় একটি এতিম খানা স্থাপনের নামে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের অনুকূলে প্রদান করেন।

অত:পর সেই টাকা হতে বগুড়ার গাবতলী থানাধীন দাঁড়াইল মৌজায় একই সময়ে ১৭টি দলিলমূলে ২ লাখ ৭৭ হাজার টাকা দিয়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে ২শমিক ৭৯ একর জমি ক্রয় করা হয়। অবশিষ্ট টাকা দিয়ে ১৯৯৩ সাল থেকে ২০০৬ সালের মধ্যে প্রায় ১৩ বছরে কোন এতিমখানা স্থাপন না করে এবং এতিম ও দু:স্থদের কল্যাণে ব্যয় না করে কথিত ট্রাস্টের নামে কোন অফিস না খুলে হিসাব-নিকাশ না রেখে দীর্ঘ দিনেও কোন অডিট না করিয়ে নাম সর্বস্ব জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামীয় একাউন্টে অব্যয়িত রাখা হয়।

অত:পর সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালো জিয়া ব্যাংকে জমা থাকা উুক্ত টাকা হতে কথিত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্রের সেটেলর ও ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য আসামি তারেক রহমান এবং অপর সদস্য মমিনুর রহমানকে দিয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার মানসে কয়েকটি চেক প্রাইম ব্যাংকের গুলশান শাখায় এফডিআর হিসাব খোলার নামে নগদায়ন করেন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও অন্যাান্যদের সহযোগিতায় নিজে বা অন্যকে অবৈধভাবে লাভবান করার মানসে অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে অসৎ উদ্দেশ্যে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে কথিত অস্তিত্ববিহীন জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুই কোটি টাকার সুসহ ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬শ৪৩টাকা আত্মসাত করে।

মামলার এফআইআর-এ খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান, সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল, সাঈদ আহমেদ, গিয়াস উদ্দিন ব্যবসায়ী ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদকে আসামি করা হয়।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক। দুদকের সহকারি পরিচালক হারুনুর রশিদ প্রায় ১২ মাস তদন্ত করে ছয়জনকে আসামি করে এই অভিযোগপত্র দাখিল করে।

সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় সাঈদ আহমেদ ও গিয়াস উদ্দিনকে অভিযোগপত্র থেকে তাদের নাম বাদ দেয়া হয়। তদন্তে নতুন করে আসামি হিসেবে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী।

এর প্রায় ৫ বছর পর ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ চার্জ (অভিযোগ) গঠন করে বিচার শুরু করেন। এর আগে একাধিকবার মামলাটি উচ্চ আদালতে আইনী চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে। আসামিপক্ষ বার বার উচ্চ আদালতে আবেদন করে সময়ক্ষেপন করার চেষ্টা করে। এ কারণে অভিযোগ গঠনে বিলম্ব হয়।

২০১৪ সালের ২২ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। অভিযোগপত্রে ৩৬ জন সাক্ষী থাকলেও এর মধ্যে ৩২ জনের সাক্ষ্য, জবানবন্দী, জেরা ও পুন:জেরা সম্পন্ন হয় গত বছরের ১২ জানুয়ারি।

এরপর ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বক্তব্য গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার এক নম্বর আসামি বিদেশে থাকায় সেদিন তিনি বক্তব্য প্রদান না করলেও অন্য আসামিরা তাদের বক্তব্য প্রদান করেন।

এরপর গত বছরের ৫ ডিসেম্বর খালেদা জিয়া তার বক্তব্য প্রদান শেষ করেন। ১৯ ডিসেম্বর শুরু হয় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন। ঐদিন রাষ্ট্রপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়। এরপর আসামিপক্ষ যুক্তিতর্ক শেষ করে গত ২৫ জানুয়ারি। এ মামলায় মোট ১৬দিন যুক্তিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরমধ্যে ১৫দিনই যুক্তির্ক উপস্থাপন করেছে আসামিপক্ষ। ২৫ জানুয়ারি যুক্ততর্ক উপস্থাপন শেষ হয়।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

গুজবে কান দিয়ে রংপুরের যে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেই শহিদুন্নবী জুয়েল আদতে ধর্মভিরু... আরও পড়ুন

আদতে ধর্মভিরু মুসলিম।

নভেম্বরের শুরুতেই নয়া প্রেসিডেন্ট পেতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডাকযোগে আগাম ভোট শুরু হয়েছে চলতি মাসে। এরই... আরও পড়ুন

ডাকযোগে আগাম ভোট

হাজী সেলিমপুত্র ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিস্কৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ... আরও পড়ুন

মোহাম্মদ জাহিদের তিন

টানা দশ ঘণ্টা রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বসে আলোচনার পর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতির... আরও পড়ুন

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে

হঠাৎ করে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে উদ্বিগ্ন আমজনতা। চলছে আন্দোলনও। দাবি উঠছে সর্বোচ্চ শাস্তি... আরও পড়ুন

ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায়

প্রায় চার মাস বাদে পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কাস পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন করেছে... আরও পড়ুন

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন

সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের পাঠানো একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস করেছে সৌদি এয়ার... আরও পড়ুন

বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনী বিতর্ক... আরও পড়ুন

নির্বাচনী বিতর্ক

পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের... আরও পড়ুন

ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সামরিক ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীতে ১৭, ৩৪০ নারী

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের নারীরাও আর পিছিয়ে নেই। দেশ গড়ার লক্ষ্যে তারাও পুরুষের কাঁধে কাধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। নারীরা এখন চ্যালেঞ্জিং পেশা বেছে নিতে আগ্রহী। তাই অনেক নারী সৈনিক পদেও যোগ দিচ্ছেন। বাংলাদেশে সামরিক ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীতে তাই বর্তমানে... আরও পড়ুন

নির্বাচন আরও পেছানোর

ভোটের তারিখ পাল্টাবে না ইসির

নির্বাচন কমিশন (ইসি) হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট দাবি জানিয়েছিল নির্বাচন পেছানোর জন্য। নির্বাচন কমিশন তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন-৩০ ডিসেম্বরের পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আর পেছানোর কোনো সুযোগ নেই। নির্বাচন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে কমিশনের এ... আরও পড়ুন