ছাত্রলীগের গোড়াপত্তনে বঙ্গবন্ধু

রিডার:: আশিক অমি:: ঢাকা

বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:১৭:২৯ পূর্বাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
থেকে ২০০ বছরের

আঠারো শতকের শেষভাগে ব্রিটিশ শোষণ ও সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে উপমহাদেশে ব্যাপক জনমত গড়ে ওঠে। প্রবল জনদাবির মুখে ভারতবর্ষ থেকে ২০০ বছরের উপনিবেশ প্রত্যাহারে বাধ্য হয় ব্রিটিশ সরকার।

বিদায়বেলায় “ইন্ডিয়ান ইন্ডিপেন্ডেন্টস এক্ট” অনুযায়ী ভারতবর্ষের মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চল নিয়ে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব ওঠে, পরিশেষে কুচক্রী ‘র‍্যাডক্লিফ রোয়েদাদ’ এর মারপ্যাচে পরিকল্পিত সীমারেখায় আনা হয় পরিবর্তন।

ঐতিহাসিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে বাংলার মানুষের ভাগ্যরেখা সম্পৃক্ত হয় ধর্মভিত্তিক উগ্রবাদী ও সাম্প্রদায়িক মনোভাবাপন্ন পাকিস্তানের সঙ্গে। বাঙালির আবহমান সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ব্রিটিশ শোষকদের কলমের দাগে পড়ে যায় অস্তিত্ব সংকটের দ্বারপ্রান্তে৷

অবিভক্ত ভারতবর্ষের বাংলায় তখন “নিখিল বঙ্গ মুসলিম ছাত্রলীগ ” প্রতিষ্ঠিত ছাত্র সংগঠন। দেশ ভাগের পর “নিখিল বঙ্গ মুসলিম ছাত্রলীগ ” নাম বদলিয়ে হয় নিখিল পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ।

কিন্তু নাম বদলের সঙ্গে সঙ্গে অপ্রত্যাশিত ও হতাশাজনকভাবে সংগঠনের নীতি-আদর্শও বদলে যেতে থাকে। সংগঠনের নেতৃত্বস্থানীয়রা সরকারের লেজুড়বৃত্তিতে সঁপে দেয় নিজেদের।

এদের একমাত্র কাজ ছিলো প্রতিক্রিয়াশীল মুসলিম লীগ নেতাদের তোষামোদ করা। তৎকালীন পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ও পূর্ব পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দিন এর ফুট – ফরমায়েশ খাটতেও কোন দ্বিধা ছিলোনা তাদের।

আপন সংস্কৃতির গৌরব-বৈভব ভুলে অথর্ব একটি সংগঠনে পরিণত হয় নিখিল পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ। এ সময় প্রতিক্রিয়াশীল অংশের নেতৃত্বে ছিলেন সরকারি মদদপুষ্ট ঘৃণিত ছাত্রনেতা শাহ আজিজের মতো উগ্রপন্থি নেতা আবার উদার ও জাতীয়তাবাদের অবিচল অংশের নেতৃত্বে ছিলেন শেখ মুজিবুর রহমানের মতো নেতা।

এ অংশ ছিলো হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর আনুকূল্য এবং তৎকালীন রাষ্ট্রভাষার প্রশ্নে নিখিল পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের ন্যক্কারজনক   উর্দু ভাষার পক্ষে অবস্থান তৎকালীন শেখ মুজিব, অলি আহাদ,দবিরুল ইসলাম ও নইমুদ্দিন এর মতো নেতাদের উদার জাতীয়তাবাদী নেতা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মুখাপেক্ষী নতুন ও পৃথক ছাত্র সংগঠন গঠনের দিকে ধাবিত করে।

রাষ্ট্রভাষার প্রশ্নে শেখ মুজিব কেন্দ্রিক প্রগতিশীল নেতাদের সঙ্গে নিখিল পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের বিরোধ তখন তুঙ্গে ওঠে। এর ই পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি ফজলুল হক মুসলিম হলের আসেমব্লি হলে এক সভা ডাকা হয়, সেখানে স্থির হয় একটি ছাত্র সংগঠন করা হবে যার নাম হবে ‘পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ’।

তৎকালীন ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক অবকাঠামোগত কারণে এ সংগঠনে মুসলিম নামটি গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছিলো।তৎকালীন মুসলিম লীগের সমকক্ষ কোন পরাশক্তি ছিল না,যারা ক্ষমতাসীন এই দলকে চাপের মুখে রাখতে সক্ষম।

প্রতিষ্ঠার কিছুদিনের মধ্যেই পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ সেই স্থানটি অর্জন করে নেয়৷ কারও সহযোগীতা ছাড়াই দুর্বার গতিতে এগোতে থাকা পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ পুরো মুসলিম লীগকেই ঘোর চ্যালেঞ্জের মুখে এনে দাড় করায়,তাদের এমন উত্তাল স্পৃহায় মুসলিম লীগের কোণঠাসা প্রগতিশীল নেতারাও উদ্দীপ্ত হয়৷

সদ্য প্রতিষ্ঠিত একটি ছাত্র সংগঠনের উগ্রবাদী সাম্প্রদায়িক মনোভাবাপন্ন সরকারের সরাসরি বিরুদ্ধাচরণের ঘটনায় তৎকালীন পুরো পাকিস্তানের মানুষ বিস্মিত হয়েছিলেন।পরবর্তীকালে এই পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ ই হয়ে ওঠে উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

তৎকালীন বৃহত্তর ফরিদপুরের সন্তান শেখ মুজিব ছাত্র রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন বাল্যকালে। কিশোর বয়সে লাভ করেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মতো বরেণ্য নেতার সান্নিধ্য, পড়াশোনার সুবাদে কলকাতা গিয়ে সেখানকার রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে ঝলমল পথচলা শুরু হয় তার।

কলকাতা থেকে খালি হাতে ফেরা তরুণ মুজিবের ঠাই হয় ঢাকার মোগলটুলীর ১৫০ নম্বর বাড়িতে। এই বাড়িটি ছিল তৎকালীন সোহরাওয়ার্দী ঘনিষ্ঠজনদের ঢাকাকেন্দ্রিক রাজনীতির বাতায়ন।

১৯৪৮ সালে এ বাড়িতেই সোহরাওয়ার্দী বলয়ের মুসলিম লীগ নেতাদের কর্মীসভায় নিজের ভাবনা ব্যক্ত করেন শেখ মুজিব এবং একটি ছাত্রসংগঠন গঠনের প্রস্তাবে ব্যাপক সমর্থন পান যা ছিল বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠার প্রথম পদক্ষেপ।

মুসলিম লীগ নেতাদের সঙ্গে তরুণ মুজিবের হৃদ্যতা বাড়তে থাকে এবং তৎকালীন ছাত্ররাজনীতিতে তরুণ শেখ মুজিবের প্রভাব হারে হারে টের পায় উগ্রবাদী সাম্প্রদায়িক তৎকালীন পাকিস্তান সরকার।

তেজোদীপ্ত কন্ঠস্বর,দূরদর্শী নেতৃত্বজ্ঞান ও চারিত্রিক বলিষ্ঠতার কারণে দীর্ঘদেহী শেখ মুজিব হয়ে উঠেন তৎকালীন  বাংলার সবচেয়ে জনপ্রিয় ছাত্রনেতা।

ধীরে ধীরে বাংলার মানুষের অধিকার আদায়ের বাতায়ন হয়ে ওঠেন তরুণ মুজিব ও তৎকালীন জন মানুষের আস্থার ঠিকানা হয় বর্তমানের উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ এ ছাত্র সংগঠন “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ”।

এভাবেই বঙ্গবন্ধু ও ছাত্রলীগ এর রাজনৈতিক গোড়াপত্তন সাধিত হয় যা পরবর্তীতে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামের রুপরেখায় এক অতি উজ্জ্বল রাজনৈতিক ছাপ রেখে যায় এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসের সাথে বঙ্গবন্ধু ও ছাত্রলীগ এর এক ঐতিহাসিক বন্ধন সুনিবিড় ভাবে পরিলক্ষিত হয়। 

 

আশিক অমি

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ

স্যার এ এফ রহমান হল 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

করোনা ভাইরাস মহামারীর সময় বাস কম যাত্রীর নেওয়া জন্য বাসভাড়া বৃদ্ধি করে সড়ক পরিবহন ও... আরও পড়ুন

মন্ত্রণালয়ের জারি করা

পুলিশ হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার পর যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত ৪০টি শহরে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।... আরও পড়ুন

বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

চলে গেলেন বি-টাউনের জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক ওয়াজিদ খান।গতকাল রবিবার রাতে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে মাত্র... আরও পড়ুন

মাত্র ৪২ বছর

যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপোলিস অঙ্গরাজ্যে পুলিশি নির্যাতনে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ মানুষের আন্দোলন আর যেন... আরও পড়ুন

অঙ্গরাজ্যে পুলিশি

মহামারীর মধ্যেই ৬৬ টানা ছুটি শেষে আগামীকাল সোমবার থেকে রাজধানী জুড়ে চলবে গণপরিবহন। করোনা ভাইরাসের... আরও পড়ুন

করোনা ভাইরাসের কারণে

কভিড-১৯ রোগীর দৌড়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পর তৃতীয় দেশ হিসেবে চার লাখের বেশি করোনা রোগী... আরও পড়ুন

রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের

সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় আরও ৪০জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে এই নিয়ে... আরও পড়ুন

নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা

ঐতিহাসিক আল-আকসা মসজিদ খুলে দেওয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল মসজিদটি। দুই... আরও পড়ুন

মসজিদ খুলে দেওয়া

ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর থেকে সর্বশেষ নিষেধাজ্ঞা ছাড় বাতিল করায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার... আরও পড়ুন

আইনগত পদক্ষেপ

এক করোনা ভাইরাসের মহামারীতে কুপোকাত গোটা বিশ্ব। মাত্র পাঁচ মাসের ব্যবধানে অন্তত ৬০ লাখ মানুষ... আরও পড়ুন

সম্প্রতি চীনের একটি

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Recommended for you

বঙ্গবন্ধুকে কন্যার শ্রদ্ধা

জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু... আরও পড়ুন

অনুতপ্ত রাব্বানী

নিজেদের ভুলত্রুটির জন্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগের সদ্য পদত্যাগী সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। চাঁদাবাজির অভিযোগে পদত্যাগ করা রাব্বানী আজ সোমবার সকালে তার ভ্যারিফাইড ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে দলীয় প্রধানের কাছে ক্ষমা চেয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন।... আরও পড়ুন

সহ-সভাপতি আল

ছাত্রলীগের নেতৃত্বে নাহিয়ান ও লেখক

সমালোচনা আর বিতর্কের মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতাকে সরিয়ে দেওয়ার পর পরই ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সংগঠনের প্রথম সহ-সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রথম যুগ্ম–সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার আওয়ামী লীগের... আরও পড়ুন

সভাপতি রেজওয়ানুল হক

শোভন-রব্বানীর সিদ্ধান্ত নিবেন শেখ হাসিনা

গেল সপ্তাহেই পর পর কয়েকবার অভিযোগ মিলেছে ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে।চাঁদাবাজিসহ বেশ কিছু ইস্যুতে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানীর উপর ‍ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এরপর থেকেই দলের ভেতর তাদের নিয়ে... আরও পড়ুন

আন্দোলনকারীদের

ঢাবিতে আন্দোলনকারীদের দেওয়া তালা ভাঙলো ছাত্রলীগ

  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভরত সাধারণ শিক্ষার্থীদের হঠাতে আজ মঙ্গলবার ছাত্রলীগ আন্দোলনকারীদের ঝুলানো তালা ভেঙে প্রশাসনিক ভবনে ঢুকেছে । আজ দুপুর ২টার দিকে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে একদল... আরও পড়ুন