করোনামুক্তির পথে অস্ট্রেলিয়া

রিডার::অস্ট্রেলিয়া

বুধবার, ১৩ মে, ২০২০ ০১:০৯:০০ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
ভাইরাসটির সংক্রমণ

করোনাভাইরাসের প্রকোপে কুপোকাত গোটা বিশ্ব। স্থবির জনজীবন। প্রতিষেধক যেমন মেলেনি, টীকা উদ্ভাবনের প্রচেষ্টাই চলছে। ভাইরাসটির সংক্রমণ রুখতে ভিন্ন ভিন্ন দেশের বিভিন্ন কৌশল মেনেও সফল হচ্ছে না অধিকাংশ দেশই। কঠোরভাবে নিয়ম পালন করায় দক্ষিণ কোরিয়া, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া, কিউবার পর এবার করোনামুক্তির পথে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়াও।

পৃথিবীর অন্য দেশের মতো অস্ট্রেলিয়াতেও করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুতগতিতে বাড়তে থাকে। এখন পর্যন্ত এই সংখ্যাটা সাত হাজারের কাছাকাছি। ১শ জনের মতো মারা গেছেন।

কিন্তু অস্ট্রেলিয়া সরকারের সময়োপোযোগী পরিকল্পনার কারণে পরিস্থিতি এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। এক্ষেত্রে তারা কিছু কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেছে।

অস্ট্রেলিয়া ভূখণ্ডের সব আন্তর্জাতিক সীমানা সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়, এরপর প্রতিটি অঙ্গরাজ্যের সীমানা দুয়ারও বন্ধ করা হয় যাতে সাধারণ মানুষ ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলাচল করে ভাইরাস না ছড়াতে পারে। আর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাকে দেওয়া হয়েছে সর্ব্বোচ গুরুত্ব।

এসব নিয়ম মানতে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত সব মানুষকে বাধ্য করা হয়। এজন্য পুলিশ প্রশাসনকে অনেক সময় কঠোর হতে হয়েছে এবং অনেককে গুনতে হয়েছে জরিমানা। আর স্বাস্থ্যকর্মীদের নিবেদন প্রশংসনীয়।

তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের বদৌলতে প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষ করোনা টেস্ট করতে পেরেছে এবং যথাসাধ্য চিকিৎসা পেয়েছে। সর্বোপরি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত সব স্থায়ী-অস্থায়ী বাসিন্দা সরকারকে সহযোগিতা করে সব নির্দেশনা মান্য করেছে।

করোনা ভাইরাস তথা কোভিড-১৯ মোকাবিলায় অস্ট্রেলিয়া সরকারের বিশেষত্ব ছিল দল-মত-নির্বিশেষে সবাই একযোগে কাজ করেছে। যখনই প্রয়োজন হয়েছে তখনই সব বিশেষজ্ঞ, রাজ্য প্রধানদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন কেবিনেট মিটিং করে নির্দেশনা জারি করেছেন। যার ফলাফল হয়েছে সূদুরপ্রসারী। করোনা পরিস্থিতি এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে।

অস্ট্রেলিয়ার করোনা পরিস্থিতি আস্তে আস্তে আশাব্যঞ্জক হওয়ায় মানুষের জীবনকে স্বাভাবিক করতে হাতে নেওয়া হয়েছে একগুচ্ছ কর্মপন্থা।

ফলে বিধিনিষেধ শিথিল করতে এবং অস্ট্রেলিয়াকে কোভিড-১৯ থেকে নিরাপদ করার জন্য তিন পর্যায়ের একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, সরকার মনে করছে আগামী মাসগুলোতে মানুষ কাজে পুনরায় যোগ দিতে পারবেন।

যদিও প্রধানমন্ত্রী জুলাইয়ের মধ্যে এই পরিকল্পনার তৃতীয় পর্যায়ে পৌঁছার প্রত্যাশা করছেন, তারপরেও নিজেদের রাজ্যের গণ-ৎস্বাস্থ্য পরিস্থিতি এবং স্থানীয় অবস্থার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে স্টেট ও টেরিটোরিগুলো তাদের সুবিধামতো সময়ে এ পর্যায়গুলোর পর্যালোচনা এবং বাস্তবায়ন করবে।

এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে অস্ট্রেলিয়া সরকার তিনটি গুরুত্বপূর্ণ পর্যায় নির্ধারণ করেছে। এই পরিকল্পনার প্রথম পর্যায়ে মনোযোগ দেওয়া হবে অর্থনীতি পুনরায় চালু করার প্রতি। অস্ট্রেলিয়ানদের কাজ ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে ফিরে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হবে।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

ঐতিহাসিক আল-আকসা মসজিদ খুলে দেওয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল মসজিদটি। দুই... আরও পড়ুন

মসজিদ খুলে দেওয়া

ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর থেকে সর্বশেষ নিষেধাজ্ঞা ছাড় বাতিল করায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার... আরও পড়ুন

আইনগত পদক্ষেপ

এক করোনা ভাইরাসের মহামারীতে কুপোকাত গোটা বিশ্ব। মাত্র পাঁচ মাসের ব্যবধানে অন্তত ৬০ লাখ মানুষ... আরও পড়ুন

সম্প্রতি চীনের একটি

এবছর এসএসসি ও সমমানের ৮২ দশমিক ৮৭ ভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ... আরও পড়ুন

সকালে গণভবন থেকে

সিকদার গ্রুপের এমডি রন হক সিকদার ও তার ভাই দীপু হক সিকদারের ক্ষেত্রে কোনো ভ্রমণ... আরও পড়ুন

বিদেশে ভ্রমণে নিয়ম

২৫ মে মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ নির্মমভাবে... আরও পড়ুন

কৃষ্ণাঙ্গ নির্মমভাবে

মুক্তির ৬৭ দিনের মাথায় দলের জেষ্ঠ নেতৃবৃন্দ এবং ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন বেগম খালেদা... আরও পড়ুন

ফিরোজায় স্বাস্থ্যবিধি

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ হ্রাসে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন বাড়াতে যাচ্ছে ভারত সরকার। সেই সঙ্গে... আরও পড়ুন

শপিংমল খোলারও

করোনা ভাইরাসে প্রকোপ থেকে বাঁচতে টানা ৬৬ দিনের সাধারণ ছুটি শেষে আগামীকাল রবিবার থেকে সীমিত... আরও পড়ুন

অফিস খুললেও সর্বোচ্চ আদালত সহসাই খুলছে

২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ২৮জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।আজ শনিবার সকাল ৮টা অবদি ৬১০জনের মৃত্যু হয়েছে।... আরও পড়ুন

নতুন শন্যাক্ত হয়েছে ১

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।