এ যুগের শাহেনশাহ

শুক্রবার, ১৩ জুলাই, ২০১৮ ০৩:০৪:১৯ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  

রিডার::নিতেন কুমার

সময় পাল্টায়, গদি পাল্টায়। বিশ্ব নতুন ক্ষমতার মুখ দেখে।সঙ্গে দেখে ক্ষমতা ব্যবহারের কৌশলগত পরিবর্তন। যুগে যুগে একনায়তন্ত্র পৃথিবীতে বয়ে গেছে।অধুনা যুগে সেই তন্ত্রের খোলশ পাল্টে নাম হয়েছে ‘গণতন্ত্র’।যদিও ক্ষমতা থেকে গেছে সেই সম্রাট থেকে ‘নেতা’ বনে যাওয়া গুটিকয়েক মানুষের হাতে।

আপনি-আমি মুখে তো বলছি, সভ্যতা এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আদতে আমরা পিছিয়ে যাচ্ছি। মানবতা হারিয়ে বেঁচে থাকার যুদ্ধে নেমেছি।

আজকাল তো উন্নত দেশের রাজনীতির ‘মোড়লদের সঙ্গে পাল্লা দিতে গিয়ে ‘পাতি’ দেশের নেতারা দীর্ঘকালীন শাসক হিসাবে থাকতে চাইছে।সবাই বাদশাহ হতে চায়।তিন-চার বছরের মেয়াদে কী বা হয়।কতটাই আর শোষন করা যায়, বলুন।

যেখানে ক্ষমতা অসীম। ‘জাহাপনা, জাহাপনা’ হতে মরিয়া হতে মন চায়। সাংবিধানিক বাধ্যবাধ্যকতাকে নিকুচি করে রাষ্ট্রের সর্বময় কর্তৃত্ব চায় নেতারা। তাদের মুখের কথা দেশের আইন। সাধারণ মানুষ দু’মুঠো খাবার না পেলেও ক্ষতি নেই।

চলতি শতাব্দি তার গোটা কয়েক শাহেনশাহ পেয়েও গেছে। যদিও তাঁরা প্রচলিত আইনের মধ্যে থেকেই নিজের গদিকে সিংহাসন বানিয়ে ছেড়েছেন।গোটা বিশ্ব চলে তাদের ইশারায়।নিজ দেশ তো বটেই।

তালিকায় আছে চীনা প্রেসিডেন্ট সি জিং পিং, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, তুরস্কেও প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি, ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট কিকোলা মাদুরো প্রমুখ। সর্বশেষ বেতাজ বাদশাহ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।তবে তিনি কিন্তু খামখেয়ালী আদুরে বাদশাহ। একটু সহজে চটে যান, এই যাহ।নয়তো মানুষটা দারুন আমুদে।

দ্য শি

হেনরি রাইডারের বিখ্যাত উপন্যাস ‘শি’ এর কথা বলছি, এমনটা ভাববেন না। বলছি চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিংপিংয়ের কথা।

 

চীনা প্রেসিডেন্ট শি

 

তাঁকে নিয়ে গুঞ্জনটা বেশ আগেই ছড়িয়ে ছিল। ২০১৮ সালের প্রথম দিতে সেই গুঞ্জনকের বাস্তব রূপে দেখল বিশ্ব। কোন কারণ না দেখিয়ে স্ব-ঘোষিত সফল শাসক হিসেবে নিজেকে ঘোষণা করলেন তিনি।  চীনের শাসনতন্ত্রে অভূতপূর্ব পরিবর্তন দেখল পৃথিবী। বিশ্ববাজার যে দেশটি নিয়ন্ত্রণ করছে সেই দেশটির সংবিধান সংশোধন করে প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টের ক্ষমতার মেয়াদ তুলে দিলেন ঠান্ডা মেজাজের শি।

এতে করে প্রেসিডেন্টট শি জিংপিংয়ের আজীবন ক্ষমতাকে বগলদাবা করে চীনে টিকে  থাকার ‘চমৎকার’ বন্দোবস্ত হল। চীন আরও একবার ফিরেছে একনায়কত্বে। শি এখন চীনা সমাজের প্রধানকর্তা। চিরকালীন চেয়ারম্যান ‘মাও নম্বর টু’ বলে নিজেকে অভিহিত করছেন।

আটোমান সুলতান

 

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপে এরদোগান

তুরস্কের রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান যেন এক পরাক্রমশালী অটোমান সুলতান। সম্প্রতি তিনি প্রেসিডেন্ট পুননির্বাচিত হয়েছেন। এবার তাঁর সামনে আজীবন ক্ষমতায় থাকার হাতছানি। সঙ্গে অসীম ক্ষমতা।

গত বছরই সংবিধান সংশোধন করে প্রেসিডেন্টকে সর্বময় ক্ষমতা দিয়েছে তাঁর সরকার। এবার সেই ক্ষমতা প্রয়োগের পালা। নতুন সংবিধান অনুযায়ী তিনিই সরকারপ্রধান, তিনিই রাষ্ট্রপ্রধান।

এরদোগানের এবারকার রাজত্বে প্রধানমন্ত্রী পদ নেই। তিনি মন্ত্রী, বিচারক নিয়োগ দেবেন। প্রতিরক্ষা বাহিনীর নিয়োগও তাঁর হাতে। কারও কাছে তাঁকে জবাবদিহি করতে হবে না।

বরং অন্যবাই তাঁর কাছে দায়বদ্ধ থাকবেন। সমান্যতম হেরফের হলে পরিণতি যে কী হবে, তা ইতিমধ্যে তুর্কিরা দেখতে শুরু করেছে।

রুশ জার

ভ্লাদিমির পুতিনকে বর্তমান বিশ্বের সর্বাধীক ক্ষমতাধর শাসক বলা যেতেই পারে।রাশিয়ার ঘাড়ে গত ১৮ বছর ধরে বসেছেন।নিয়মকে নিয়মের মতো রেখেই যিনি তৈরী করেছেন বড় ফোকর।যা গেলে তিনি কখনও হচ্ছেন প্রেসিডেন্ট।কখনও প্রেসিডেন্ট।তবে ক্ষমতা তাঁর বাড়ছে।

 

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

 

চলতি বছরের মার্চ মাসে ফের একবার রাশিয়ার নতুন জার আসলেন স্বপদে।বিপুল ভোটে জয় মাথায় নিয়ে আগামী ছয় বছরের জন্য তিনি তাঁর সিংহাসন টিকিয়ে রেখেছেন।আগামীতেও তার খুব একটা পরিবর্তন হবে না বলে ঠাহর করাই যায়।

পুতিনের সবচেয়ে বড় গুণ হল তিনি জানেন, ক্ষমতা জিইয়ে রাখতে হলে বৈশ্বয়িক সম্পর্কের ইতিহাস পাল্টে দিতে হবে।রক্ষণশীল হয়েও তিনি যেন আধুনিক।সময়ের সঙ্গে ঠিক নিজেকে তিনি পাল্টে ফেলতে পারেন।সব চেয়ে বড় ব্যাপার হল পুতিন বিশ্বের অন্য যে কোন নেতার থেকে ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিখুঁতভাবে মাপঝোঁকে পারদর্শি।যা তাঁকে ক্রমান্বয়ে গদিতে পোক্ত হয়ে বসার জন্য সবচেয়ে বেশি সহযোগীতা করছে।

 

মার্কিন সম্রাট

মার্কিন সাম্রাজ্যে কথা এত দিন আমরা শুনে এসেছি। কিন্তু কোনো সম্রাটটা শুধু দেখা বাকী ছিল । সেই কমতিটা হারে হারে বুঝিয়ে দিতে এবার প্রেসিডেন্ট-শাসিত যুক্তরাষ্ট্র একজন সম্রাট পেয়েছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন।

 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

 

তিনি গদিতে বসেই মার্কিন গণতন্ত্রের সো’হা করেছেন বটে। গণমাধ্যমকে জনগণের কাছে আস্থাহীন করে তুলেছেন। কায়দা করে রিপাবলিকান পার্টি, হোয়াইট হাউস ও কংগ্রেসের ওপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছেন।

বাকি ছিল বিচারব্যবস্থা। তাও ট্রাম্পের পকেটে নেওয়ার সব আয়োজন সারা। এবার ট্রাম্পকে ঠেকায় কে?

পুতিন, সি, এরদোগান, ট্রাম্পের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছেন মিসরের সিসি, ভেনেজুয়েলার মাদুরো। হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, স্লোভাকিয়া, সার্বিয়ার নেতাদের নামও বাদ দেওয়ার উপায় নেই। ফিলিপাইনের দুতার্তের মনেও সম্রাট হওয়ার শখ। সামনের দিনে এই তালিকা হয়তো আরও দীর্ঘ হবে।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

গুজবে কান দিয়ে রংপুরের যে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেই শহিদুন্নবী জুয়েল আদতে ধর্মভিরু... আরও পড়ুন

আদতে ধর্মভিরু মুসলিম।

নভেম্বরের শুরুতেই নয়া প্রেসিডেন্ট পেতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডাকযোগে আগাম ভোট শুরু হয়েছে চলতি মাসে। এরই... আরও পড়ুন

ডাকযোগে আগাম ভোট

হাজী সেলিমপুত্র ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিস্কৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ... আরও পড়ুন

মোহাম্মদ জাহিদের তিন

টানা দশ ঘণ্টা রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বসে আলোচনার পর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতির... আরও পড়ুন

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে

হঠাৎ করে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে উদ্বিগ্ন আমজনতা। চলছে আন্দোলনও। দাবি উঠছে সর্বোচ্চ শাস্তি... আরও পড়ুন

ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায়

প্রায় চার মাস বাদে পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কাস পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন করেছে... আরও পড়ুন

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন

সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের পাঠানো একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস করেছে সৌদি এয়ার... আরও পড়ুন

বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনী বিতর্ক... আরও পড়ুন

নির্বাচনী বিতর্ক

পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের... আরও পড়ুন

ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।