আমেরিকার যে কোন নিষেধাজ্ঞাকে ভেঙ্গে ধূলিস্মাৎ করে দেবো:রুহানি

রিডার::ইরান

বৃহস্পতিবার, ২০ আগস্ট, ২০২০ ০২:১৫:৫১ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
আনার চেষ্টা করে তাহলে

ইরান দমে যাওয়ার দেশ নয়। যুক্তরাষ্ট্র যদি আবারো আমাদের বিরুদ্ধে কথিত স্ন্যাপব্যাক বা নিষেধাজ্ঞা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করে তাহলে তারা অবশ্যই ব্যর্থ হবে বলে হুঁশিয়ারি জানিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

তিনি বলেন, আমেরিকা কোনো অবস্থাতেই আর পরমাণু সমঝোতার অংশীদার নয় এবং তারা এই স্ন্যাপব্যাক মেকানিজম কেউ ব্যবহার করতে পারবে না। পরমাণু সমঝোতার অন্য পক্ষগুলো এরইমধ্যে আমেরিকা প্রচেষ্টাকে নিন্দা ও প্রত্যাখ্যান করেছে।

গতকাল বুধবার রাজধানী তেহরানের মন্ত্রিসভার সাপ্তাহিক বৈঠকে দেয়া বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রেসিডেন্ট রুহানি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতাকে তার দেশের জন্য সবচেয়ে নিকৃষ্ট চুক্তি বলে ২০১৮ সালে সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যান এবং ইরানের বিরুদ্ধে একতরফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।

পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার দুই বছর পর ট্রাম্প প্রশাসন পরমাণু সমঝোতাকে ব্যবহার করে ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে এবং তারা দাবি করছে তারা এখনো সমঝোতার অংশীদার।

গত সপ্তাহে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে তোলা একটি প্রস্তাব নিয়ে আমেরিকা মারাত্মকভাবে পরাজিত হওয়ার পর ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের জন্য কথিত স্ন্যাপব্যাক মেকানিজম ব্যবহারের চেষ্টা করছে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট আমেরিকাকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন — পরমাণু সমঝোতায় টিকে থাকা এক বা একাধিক দেশ এই স্ন্যাপব্যাক ম্যাকানিজম ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু আমেরিকা যদি এই পথ এখন অনুসরণ করে তাহলে সারাবিশ্বে জানে তার পরিণতি কী হবে। তারা নিজেরা সেতু পুড়িয়ে দিয়ে কল্পনা করছে এখনো সেই সেতু ঠিক আছে এবং তারা তা পার হবে।

ইরানের জনগণকে আমেরিকাসহ যেসব দেশ নির্যাতিত করার চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে শক্তভাবে রুখে দাঁড়াবে বলেও সংকল্প ব্যক্ত করেন প্রেসিডেন্ট রুহানি। তিনি বলেন, ইরানের ভেতরে কেউ যদি মনে করে থাকেন হোয়াইট হাউজের এই বর্বর সরকার এবং এই নিষ্ঠুর নিষেধাজ্ঞা চিরস্থায়ী তাহলে তারা ভুল করছেন।

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন — নিষেধাজ্ঞা ভেঙে যাবে এবং আমরা তা ধূলিস্মাৎ করে দেব। প্রতিরোধের মাধ্যমে আমরা তাদেরকে বুঝিয়ে দেবো যে, তারা ভুল করেছে এবং হোয়াইট হাউস ভালোভাবে বুঝতে পেরেছে তারা ভুল করেছে। কিন্তু এই পথ থেকে তারা বেরিয়ে আসার ব্যাপারে অসহায় কারণ তারা এমন একটি কঠিন পথ বেছে নিয়েছে যা থেকে বেরিয়ে আসা কষ্টকর।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

একটা সময় ছিল ডাকু মনসুরকে খুঁজতে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিকরা তার মাথার দাম ধরেছিল ১০০ টাকা।ডাকু মনসুর... আরও পড়ুন

মনসুরকে খুঁজতে ব্রিটিশ

শুধু কি গোসল, সাঁতারও কাটা যায় নবাবি পুকুরের টলটলে স্বচ্ছ পানিতে। আর সেই জন্য খরচ... আরও পড়ুন

সর্বসাকুল্যে পাঁচ টাকা

একদিকে ভারতজুড়ে করোনা ভাইরাসের মহামারীর তান্ডব।তা সামলাতেই ঘাম ছুটছে ভারতীয় প্রশাসনের। অন্যদিকে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে... আরও পড়ুন

প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সীমান্ত

ডিড অব দ্য সেঞ্চুরির (শতাব্দির চুক্তি) নামে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে ইসরায়েল যে... আরও পড়ুন

ডিড অব দ্য সেঞ্চুরির

দেশের শীর্ষ কওমী আলেম ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা আহমদ শফীকে শেষ বিদায় জানাতে লাখো... আরও পড়ুন

মানুষের ঢল নেমেছে চট্টগ্রামের দারুল উলুম

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিশ্বনেতারা পছন্দ করুন আর নাই করুন মার্কিন জনতা তাতে আদতেই আসে যায়... আরও পড়ুন

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিশ্বনেতারা

অবশেষে আফগানিস্তানে সন্তানের জাতীয় পরিচয়পত্রে বাবার নামের সঙ্গে মায়ের নামও যুক্ত করা হচ্ছে।গত বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট... আরও পড়ুন

মায়ের নামও যুক্ত

লগডাউনের সময়টায় নিজের হাতে রান্না করে পথের কুকুরদের খাওয়াতেন অভিনেত্রী জয়া আহসান।বেশ কিছুদিন ধরেই রাজধানী... আরও পড়ুন

কুকুরদের খাওয়াতেন অভিনেত্রী জয়া

পুরান ঢাকার ৭০ বছর বয়স্ক এক ব্যবসায়ী গুলশান দুই নম্বরের এক রেস্তোঁরায় প্রথম সাক্ষাত করেন... আরও পড়ুন

পত্রিকার পাতায় ‘পাত্র

হেফাজতে ইসলামের আমির আহমদ শফী মারা গেছেন।(ইন্নাহ লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা... আরও পড়ুন

আহমদ শফী মারা গেছেন

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।