প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমের সামনে এলেন ওসামা বিন লাদেনের মা

আমার ছেলে, ওসামা

শনিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৮ ০১:৪৮:১০ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  

রিডার::অনুবাদ: শিহাব আলম

দির্ঘদিনের অস্বস্তি, চাপা কষ্ট  বইতে না পেরে অবশেষে প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ানের সামনে এসেছেন আল-কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেনের মা আলিয়া ঘানেম।

এতোকাল গণমাধ্যমের আড়ালে জীবন যাপন করে আসছিলেন তিনি।ওসামার মৃত্যুর পর আরও বেশি মুখ লোকচক্ষুর আড়ালে চলে যান তিনি।

সম্প্রতি সৌদি প্রিন্স সালমানের অনুরোধে ঘানেম সাক্ষাৎকারে রাজি হন।সঙ্গে ছিল ওসামার আরেক সৎ ভাই হাসান ও আহমেদ এবং সৎবাবা মোহাম্মদ আল আত্তাস।

‘ওসামা আমার বড় ভাই, এতে বিন্দু মাত্র লজ্জা নেই আমার।তাকে নিয়ে আমি গর্ববোধ করি।তিনি আমাকে স্নেহ করতেন।ভাই হিসেবে তিনি অমায়িক ছিলেন। আমাদের বিশাল পরিবারে আমি তাঁর কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছি।কিন্তু একজন মানুষ হিসেবে তাকে নিয়ে আমি গর্ব করতে পারিনা।বিশ্বজুড়ে তাঁর সন্ত্রাসী কর্মযজ্ঞ খুব কষ্ট দেয়।’

আলিয়া ঘানেম ছেলে হাসানের কথা শুনছিলেন মনোযোগ দিয়ে।

 

ভাই-বোনদের সঙ্গে সুইডেনে যাত্রায় ওসামা বিন লাদেন(ডান দিক থেকে দ্বিতীয়)

 

হঠাৎ তিনি বললেন, ‘ছেলেটা সোজা-সাপ্টা কথা বলতে পারতো। লেখা-পড়ায় তুখোড় ছিল।পড়তেও ভালবাসতো।প্রচলিত আরবীয় ছেলেদের মতো প্রমোদে ব্যস্ত থাকতো না।’

‘কুড়ি বছর অবদি পড়ালেখায় দারুন করছিল।বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার পর থেকে ও নাকি বিপদগামীদের সঙ্গে  জড়িয়ে পড়েছিল।ছেলেটা আমাকে বড় ভালবাসতো।আমার বড় সন্তান সে।’

এক পর্যায় বলেই ফেললেন, ‘ ওসামা ওর সবটুকু সম্পদ আফগানিস্তানের পেছনে ব্যয় করেছে।সে পারিবারিক ব্যবসায়ে কর্ণধার হতে পারতো।ব্যবসায় ধাঁচ তার নখর্দপণে থাকলে জিহাদির নামে ছেলেটাকে জীবন দিতে হল।’

ছেলে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে গুনাক্ষরেও তিনি টের পেয়েছিলেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন –টাহরই করতে পারেনি।’

যখন জানতে পেরেছিলেন তখন কী ভেবেছিলেন জানতে চাইলে বলেন, ‘ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না, কতোটা কষ্টে ছিলাম।আমার পেটের ছেলে নিরাপরাধ মানুষকে হত্যা করবে! সে জিহাদের নামে সন্ত্রাসী কাজে লিপ্ত তাকে ধরতেই একটি দেশে যুদ্ধ হবে!আমি ভাবতেই পারছিলাম না।কেন সে পরিবার-পরিজন ফেলে চলে গেল — আজও জানি না।’

লাদেন পরিবার বলছে, তাদের সঙ্গে ওসামার সর্বশেষ দেখা হয়েছিল ১৯৯৯ সালে। আফগানিস্তানের কান্দাহারে ওসামার ঢেড়ারর বাইরে বার দুয়েক হয়েছিল তাদের।

ঘানেম জানান, ‘কান্দাহারের বিমানবন্দরের কাছাকাছি কোন এলাকায় রুশ সেনারা ওসামাকে পাকড়াও করলে শেষবারের মতো তার মুখটি দেখেছিলেন পরিজনরা।ও পরিবারের জন্য পশু কুরবানি করে সবাইকে খাইয়েছিল। আমার ছেলেটা…। ’

এসময় খানিকটা স্বস্তি বোধ করছিলেন ঘানেম।জানালেন, সিরিয়ার লাতাকিয়া শহরে তার শৈশব কেটেছে।১৯৫০ সালের দিকে তিনি সৌদি আরব চলে আসেন। ১৯৫৭ সালে রিয়াদে জন্ম হয় ওসামা বিন লাদেনের।বছর তিনেকের মাথায় ওসামার বাবার সঙ্গে তার তালাক হয়ে যায়।

এর পরই আল-আত্তাসের সঙ্গে তার বিয়ে হয়।সেই ঘরে আত্তাসের অন্তত ১১জন স্ত্রী ছিল।সন্তান ছিল ৫৪ জন। কথা বলতে বলতে কিছুক্ষণের ভেতরে বৃদ্ধা ঘানেম আলিয়া ক্লান্ত হয়ে পড়লেন প্রাসাদের অন্য ঘরে চলে যান।

 

ওসামার সৎ বাবা আত্তেসের সঙ্গে মা ঘাণেম

 

ওই সময়ে ওসামা সৎ ভাইয়েরা জানান, ৯/১১ হয়েছে অন্তত ১৭ বছর হয়েছে।কিন্ত আজও ওসামাকে গভীরভাবে ভালবাসেন মা।তাঁর প্রথম সন্তান তিনি।তাই তিনি কখনও ওসামাকে তার কর্মযজ্ঞের জন্য দায়ী করতে পারেননা।তিনি ওসামার সঙ্গীদেরকে সব সময় সবকিছুর জন্য দায়ী মনে করেন।আজও তার মনে কুড়ি বছরের ভোলা-ভালা সন্তানই গেঁথে আছে।ওসামার সন্ত্রাসী দিকটাকে তিনি জানতে চাননি।তিনি যে মা।’

একপযায় তারা বলেন, ‘ আজ পরিবারের সর্বকনিষ্ঠ মানুষটিও তাঁর কাজে লজ্জিত।নিইইয়র্ক হামলার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আমরা জানতে পারি।এটা তাঁরই কাজ।ওই সময়টায় আমরা বুঝতে পারি ভয়াবহতা শুধু ভুক্তভোগীদেরই নয় আমাদেরও বইতে হবে।দ্রুততম সময়ের মধ্যে আমরা সৌদিতে চলে আসি।’

অপর ভাই বলেন, ‘সৌদিতে তখন আমাদের উপর নজরদারি বাড়লো এবং এটা খুব স্বাভাবিক।আপনারই ভাই বিশ্বে যখন এতো ত্রাস সৃষ্টি করবে, সন্দেহের তীর আপনাকে ছেড়ে কথা কইবে না।কর্তৃপক্ষ আমাদের কঠোর নজরদারিতে রেখেছিল।বিদেশ যাত্রায় এলো নিষেধাজ্ঞা।তখন সৌদি কর্তৃপক্ষের কাছে ঘন্টা ঘন্টায় জিজ্ঞাসাবাদের সম্মুখিন হতে হতো। যে কোন কাজে লাদেন পরিবারকে দেশের বাইরে যেতে হলে জবাবদিহিতার শেষ ছিল না।’

কুড়ি বছরে তাদের জীবন-যাপন স্বাভাবিক হয়ে এলেও কালি তো আজও মোছেনি।

 

 

 

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

গুজবে কান দিয়ে রংপুরের যে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেই শহিদুন্নবী জুয়েল আদতে ধর্মভিরু... আরও পড়ুন

আদতে ধর্মভিরু মুসলিম।

নভেম্বরের শুরুতেই নয়া প্রেসিডেন্ট পেতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডাকযোগে আগাম ভোট শুরু হয়েছে চলতি মাসে। এরই... আরও পড়ুন

ডাকযোগে আগাম ভোট

হাজী সেলিমপুত্র ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিস্কৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ... আরও পড়ুন

মোহাম্মদ জাহিদের তিন

টানা দশ ঘণ্টা রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বসে আলোচনার পর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতির... আরও পড়ুন

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে

হঠাৎ করে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে উদ্বিগ্ন আমজনতা। চলছে আন্দোলনও। দাবি উঠছে সর্বোচ্চ শাস্তি... আরও পড়ুন

ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায়

প্রায় চার মাস বাদে পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কাস পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন করেছে... আরও পড়ুন

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন

সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের পাঠানো একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস করেছে সৌদি এয়ার... আরও পড়ুন

বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনী বিতর্ক... আরও পড়ুন

নির্বাচনী বিতর্ক

পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের... আরও পড়ুন

ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।