স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকার উপর নির্ভর করছে সুষ্ঠু ভোট

রিডার::ঢাকা

বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২০ ০৫:০০:১০ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
দায়িত্ব পালন করলে

ঢাকা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহ সততা, নিরপেক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করলে অবশ্যই সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন সম্ভব হবে বলে মনে করছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন স্বাক্ষরিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর নির্দেশনায় একথা বলা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত পরিপত্রে বলা হয়েছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যথাযথ ভূমিকার উপর সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠান বহুলাংশে নির্ভর করে। এমনকি নির্বাচনে কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবেন কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পরিচালনায় দায়িত্বরত সেনা সদস্যরা। এই নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারকে। মন্ত্রীপরিষদ, মূখ্য, ইসিসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, পুলিশের আইজি, বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধান, দুই রিটার্নিং অফিসারসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সবাইকে এই পরিপত্র পাঠিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বলা হয়, দুই সিটি ভোটের নির্বাচনী কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় কারিগরি সহায়তা প্রদানের জন্য প্রতিকেন্দ্রে দুইজন করে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকবে।

তবে তারা কোনো ধরনের অস্ত্র, গোলাবারুদ বহন করবেন না। কিন্তু ইউনিফর্ম পরিহিত অবস্থায় দায়িত্ব পালন করবেন। দায়িত্ব পালনকালে ইভিএম-এর মাধ্যমে ভোটে প্রদান যথাযথভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করবেন।

ভোটকেন্দ্রে নিয়োজিত কর্মকর্তা, সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য, দায়িত্বপ্রাপ্ত অন্যান্য সবার নিরাপত্তা, ইভিএমের নিরাপত্তা বিধান ও সুশঙ্খলভাবে ভোটগ্রহণের নিশ্চয়তা বিধানের লক্ষ্যে ভোটকেন্দ্রে নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এছাড়া রিটার্নিং অফিসার/সহকারী রিটার্নিং অফিসার এবং ক্ষেত্রমতে, প্রিজাইডিং অফিসার ভোটকেন্দ্রে অবস্থানকারী আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং টহল কাজে নিয়োজিত পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবির সহায়তায় সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সদস্যদের যাবতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন। যেকোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে সশস্ত্রবাহিনীর সদস্যরা প্রিজাইডিং অফিসারের সহায়তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করবেন এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী বলেন, সব কেন্দ্রে ইভিএম-এর ব্যবস্থাপনায় সশস্ত্র বাহিনীর ৫ হাজার ২৮০ জন সদস্য থাকবেন। তারা শুধু ইভিএম পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন।

নিরাপত্তার চাদরে থাকবে দুই সিটি ঃ নগরীকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বসানো হচ্ছে নিরাপত্তা চৌকি। ভোটারদের নিরাপত্তা আর ভোটদান নির্বিঘ্ন করতে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হচ্ছে ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবির ও আনসার মিলে প্রায় অর্ধলক্ষাধিক সদস্য এই নির্বাচনে মাঠে কাজ করছেন। নির্বাচনী অপরাধ দমন ও সংক্ষিপ্ত বিচার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মাঠে নামছেন ১৭২জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ৬৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

নির্বাচনের রুটিন ওয়ার্কের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার আর সন্ত্রাসী, মাস্তানদের আটকে পরিচালনা করছে বিশেষ অভিযান। মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে পুলিশ, এপিবিএন, ব্যাটালিয়ন আনসার, র‌্যাব ও বিজিবি মোতায়েন থাকবে।

যানচলাচল ও বহিরাগতদের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইসি। সিটি নির্বাচনে জনস্বার্থে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে লাইসেন্সধারী অস্ত্রের মালিকদের ৩০ জানুয়ারি থেকে ৩রা ফেব্রুায়ারি পর্যন্ত সব ধরনের আগ্নেয়াস্ত্রসহ চলাফেরা করার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

প্রতিটি সাধারণ ওয়ার্ডে মোবাইল ফোর্স, স্ট্রাইকিং ফোর্স, রিজার্ভ স্ট্রাইকিং এবং র‌্যাবের আলাদা টিম থাকবে। প্রতি দুই সাধারণ ওয়ার্ডে ১ প্লাটুন বিজিবির সদস্য মোতায়েন থাকবে।

আজ বৃহস্পতিবার থেকে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইসির নির্দেশে ২৭ জানুয়ারি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জারিকৃত পরিপত্রে নির্বাচনে নিয়োজিত সকল কর্মকর্তা এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ২৬ ধরণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সবশেষে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট সকলের আইনানুগ দায়িত্ব পালনের মাধ্যমেই কেবল সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব হবে। এই দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটারদের ও ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তা দিতে আজ সকাল থেকেই মাঠে থাকবে বিজিবি। উত্তর সিটির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বিজিবির সঙ্গে আমার কথা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল নয়টা থেকেই বিজিবির সদস্যরা মাঠে থাকবেন। শুধু তারাই নয় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন। প্রতিটির জন্য ওয়ার্ডে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং দুইটি ওয়ার্ডের জন্য একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থাকছেন। আবুল কাসেম বলেন, ৩০ জানুয়ারি রাত বারোটা পর্যন্ত প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারবেন।

এরপর যদি কোনো প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারণা চালায় সেক্ষেত্রে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটরা তাদের সামারি ট্রায়াল করে এরপর ব্যবস্থা নেবেন।

বহিরাগতদের ঢাকা ছাড়ার নির্দেশ ইসির :ভোটের দিন বহিরাগতদের রাজধানী ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর। গত মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ ও বুধবার ১৪ দল ইসির সঙ্গে বৈঠকে অভিযোগ করে, নির্বাচনকে সামনে রেখে সহিংসতা করতে বিএনপি বহিরাগতদের ঢাকায় নিয়ে এসেছে।

১৪ দল চলে যাওয়ার পর বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ও র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করে ইসি।

বৈঠক শেষে ইসি সচিব বলেন, ‘অন্য নির্বাচনের ক্ষেত্রে যে এলাকায় ভোট থাকে, সেই এলাকায় ভোটের দিন বাইরের কোনো লোক অবস্থান করতে পারে না। এটা রাজধানী। মানুষকে বিভিন্ন প্রয়োজনে এখানে আসতে হয়। এসব বিষয় বিবেচনা করে ওইসব বিষয় বন্ধ করা যাবে না। ঢাকায় ভোটার ছাড়া কোনো লোক থাকতে পারবে না বা বাইরের কেউ আসতে পারবে না -এগুলো করা যাবে না। বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যে, ভোটের দিন যেন যারা ভোটার না, বিশেষ করে ঢাকায় বহিরাগত, তারা যেন ভোটকেন্দ্রে না আসেন। যদি অত্যন্ত প্রয়োজন না থাকে, তাহলে নিষ্প্রোয়জনে কেউ যেন ঢাকায় অবস্থান না করেন।

যাদের জরুরি প্রয়োজন, তাদের তো থাকতেই হবে। তাদেরকে যেন পুলিশ এলাউ করে। যদি কোনোই কারণ না দেখাতে পারে, শুধু শুধু ঢাকায় এসেছে, তাদেরকে চলে যেতে বলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দ্বিতীয়ত ঢাকায় অবস্থান করেন বিভিন্ন কারণেই, কিন্তু ঢাকার ভোটার নন। তারা যেন অযথার অপ্রয়োজনে, ভোট কেন্দ্রে গিয়ে জটলার সৃষ্টি না করেন। সেটা করলে যারা ভোট দিতে আসবেন, তাদের জন্য ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জন্য সমস্যার কারণ হতে পারে। তৃতীয়ত, আরেকটি পুলিশকে অনুরোধ করা হয়েছে যে, যাদের ভোট দেয়া হয়ে যাবে, তারা যেন সেখানে অবস্থান করে অন্যকে ভোট দেয়ায় বাধার সৃষ্টি না করে।

এই মুহুর্তে পড়া হচ্ছে

গুজবে কান দিয়ে রংপুরের যে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেই শহিদুন্নবী জুয়েল আদতে ধর্মভিরু... আরও পড়ুন

আদতে ধর্মভিরু মুসলিম।

নভেম্বরের শুরুতেই নয়া প্রেসিডেন্ট পেতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডাকযোগে আগাম ভোট শুরু হয়েছে চলতি মাসে। এরই... আরও পড়ুন

ডাকযোগে আগাম ভোট

হাজী সেলিমপুত্র ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিস্কৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম এবং তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ... আরও পড়ুন

মোহাম্মদ জাহিদের তিন

টানা দশ ঘণ্টা রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বসে আলোচনার পর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতির... আরও পড়ুন

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে

হঠাৎ করে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে উদ্বিগ্ন আমজনতা। চলছে আন্দোলনও। দাবি উঠছে সর্বোচ্চ শাস্তি... আরও পড়ুন

ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ায়

প্রায় চার মাস বাদে পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৃশ্যমান... আরও পড়ুন

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কাস পার্টির ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে একটি নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন করেছে... আরও পড়ুন

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) উন্মোচন

সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীদের পাঠানো একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস করেছে সৌদি এয়ার... আরও পড়ুন

বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন ধ্বংস

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে দেশটির ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনী বিতর্ক... আরও পড়ুন

নির্বাচনী বিতর্ক

পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের... আরও পড়ুন

ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু

  সাম্প্রতিক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।